আইসিসির হাস্যকর নিয়ম নিয়ে এবার সরব হলেন বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর….

যেমন কি আপনারা জানেন গতকালের বিশ্বকাপের ফাইনাল গিয়ে পৌঁছে ছিলো সুপার ওভার পর্যন্ত যা এর আগে ক্রিকেট বিশ্বকাপে ঘটেনি। তবে সেখানেও উভয় টিমের মধ্যে হয় টাই। আর এই সুপার ওভারে ইংল্যান্ডের ব্যাটস ম্যানরা ব্যাট হাতে মাঠে গড়ে তুলে 15 রান, তবে তাদের পাল্টা জবাবে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরাও মাঠে নেমে গড়ে তুলে 15 রানের ইনিংস। তবে এক্ষেত্রে ম্যাচ জিতে নিল ইংল্যান্ড ও বিশ্বকাপও। তবে এখন অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে টাই হওয়ার পরও কিভাবে এই ম্যাচ ইংল্যান্ড জিতে নিলো,তো তাদের উদ্দেশ্যে বলে রাখি আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী ম্যাচ টাই হওয়ার পর সুপার ওভারের মিমাংসা না হলে যে দল সেই ম্যাচে বেশি সংখ্যক বাউন্ডারি মেরেছে তাদের জয়ী বলে ঘোষণা করা হবে।

তবে আইসিসির এমন নিয়ম অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও বললেন, খেতাব জয়ের এত কাছে এসে এমন হার মেনে নেওয়া কষ্টকর। গতকাল হওয়া গোটা ম্যাচে লড়াকু মানসিকতার পরিচয় দিয়েছিল নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা। আর তাই কিউয়িদের জন্য ক্রিকেট সমর্থকদের এত খারাপ লাগা! তবে অনেকেই বলেছেন, বাউন্ডারির নিরিখে ম্যাচের ফল ঘোষণা করার নিয়ম অনেকটা হাস্যকর। আর এই নিয়েও সরব হয়েছেন গৌতম গম্ভীরও। বিশ্বকাপ ফাইনালে 14 টি চার ও দুটি ছক্কা হাঁকিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। ইংল্যান্ডের খাতাতেও ছিল দুটি ছক্কা। কিন্তু তারা 22 টি বাউন্ডারি মেরেছিল। তাই বাউন্ডারি কাউন্ট এর নিরিখে ইংল্যান্ডকে জয়ী হিসাবে ঘোষণা করা হয়।

আর এরপর 2011 সালে বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের অন্যতম সদস্য তথা গৌতম গাম্ভীর আইসিসিকে এক হাত নিলেন। এই দিন তিনি তার টুইটার একাউন্টে একটি পোস্ট টুইট করেন সেখানে তিনি লিখেছেন আমি বুঝলাম না বিশ্বকাপ ফাইনালের মতো এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের ভাগ্য কিভাবে বাউন্ডারি সংখ্যা দ্বারা নির্ধারিত করা হয়! তিনি বলেন এটি আইসিসির হাস্যকর নিয়ম। ম্যাচটা টাই ঘোষণা করা উচিত ছিল।’ অর্থাত্‍ যৌথ দলকেই চ্যাম্পিয়ন বলে ঘোষণা করা উচিত ছিল বলে মনে করেন গম্ভীর। তবে এই বিষয় নিয়ে আপনাদের কি মতামত তা আমাদের অবশ্যই জানাবেন। আরো এরকম নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজ “দ্যা ইন্ডিয়া নিউজ”-এ।

Related Articles

Close