বড়সড় ধাক্কা বিজেপি শিবিরে, সাত দিনের মধ্যেই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফিরতে চলেছে রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

১০ মার্চ তৃণমূলের সুপ্রিমো মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee) বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী ঘোষণা করেছিলেন। ঠিক তার পরেই তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বেঁধে যায়। কারণ এবারে তৃণমূলের বিধানসভার প্রার্থী তালিকায় স্থান পেয়েছে বিভিন্ন তারকারা। এই তালিকায় নাম ওঠেনি পুরনো বিধায়ক মন্ত্রীদের। তাই একে একে বিধায়করা মুকুল রায় এবং শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে তৃণমূল ছেড়ে যোগদান করে বিজেপিতে। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের তালিকাতে ছিলেন বিধানসভার বিধায়ক তথা প্রাক্তন মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা।

মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে তিনি যোগদান করেছিলেন। কিন্তু সাত দিনেই তাঁর মোহভঙ্গ হয়ে গেল। তিনি আবার ফিরতে চলেছেন মা-মাটি-মানুষ শিবিরে। তৃণমূল কংগ্রেসের বিধানসভা ভোটের প্রার্থী তালিকায় প্রাক্তন মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা স্থান না পাওয়ায় বিক্ষুব্ধ হয়ে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সাথে তিনি দেখা করেন। তারপর বিজেপিতে যোগদান করেন।

কিন্তু কি হল তাঁর সাত দিনের মধ্যে বিজেপিতে যোগ দানের আশা তার ফুরিয়ে গেল? এখন বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিতে চান দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তপন বিধানসভার এই বিধায়ক। ১০ মার্চ তিনি বিজেপিতে যোগদান করেন। সেদিন তাঁর হাতে বিজেপির দলীয় পতাকা তুলে দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বিজেপিতে যোগদানের পর তিনি যখন তাঁর নিজের জেলায় ফেরেন-তখন বিজেপির কোনো সভাতে তাঁকে যোগ দিতে দেখা যায়নি। বিজেপির কর্মীরা তাঁর সাথে যোগদান করেনি বলে অভিযোগ করেছেন বাচ্চু হাঁসদা। তিনি মনে করেন বিজেপির কোনো কাজে তাঁকে লাগানো সম্ভব নয় তাই তিনি মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েছিলেন। এখন তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে তিনি তাঁর পুরনো দলেই ফিরে যাবেন। তবে তৃণমূল শিবিরে তাঁকে যোগ দিতে দেওয়া হবে কিনা সে বিষয়ে এখনো কোনো গ্রিন সিগন্যাল পাওয়া যায়নি।