অবশেষে সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে,বিজেপিতে যোগদান করলেন বিশ্বকাপজয়ী ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর।

অবশেষে সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটল। খেলা থেকে অবসর নেওয়ার পর গৌতম গম্ভীর রাজনীতিতে নতুন ইনিংস শুরু করলেন। অনেকদিন ধরে রাজনৈতিক মহলের জল্পনা দেখা দিয়েছিল যে প্রথম গম্ভীর বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন। শুক্রবারেই ভারতীয় প্রাক্তন ক্রিকেটার বিজেপির ঝান্ডা নিজের হাতে তুলে নতুন ইনিংস শুরু করলেন। খেলা ছাড়ার পর তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা কাজ কর্মের জন্য বিখ্যাত ছিলেন। তিনি দেশাত্মবোধক মনোভাবের জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয়। এছাড়াও তিনি নানান ধরনের সমাজসেবা মূলক কাজ করে থাকেন। এমনকি তার নিজের একটা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও রয়েছে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রতি তার একটা আলাদা টান রয়েছে। আর এর প্রমাণ আমরা অনেকবার পেয়েছি। গৌতম গম্ভীর পুলওয়ামায় হওয়া জঙ্গি হামলায় যে সমস্ত সিআরপিএফ জাওয়ান শহীদ হয়েছিলেন তাদের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন। শুক্রবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলির হাত ধরে গৌতম গম্ভীর বিজেপিতে পা দেন। এছাড়াও ভারতীয় এই তারকা ক্রিকেটার কে বিজেপিতে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ।গম্ভীর এর হাতে নিজেদের দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে অরুণ জেটলি বলেন,’ভারতকে দুটি বিশ্বকাপ এনে দেওয়ার পেছনে গম্ভীরের অবদান যে কতটা তা প্রত্যেক ভারতবাসী জানেন। ক্রিকেটের মাঠে যেমন তিনি নিজেকে প্রমাণ করেছেন তেমনি এবার রাজনীতির মাঠে তিনি নিজের আলাদা পরিচিতি তৈরি করতে চলেছেন।’ গৌতম গম্ভীরকে লোকসভা নির্বাচনে প্রচারে নিজেদের দলে অংশ নেবেন বলে জানালেও বর্তমানে তার লোকসভা ভোটে দাঁড়ানো নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি অরুণ জেটলি। এই পুরো বিষয়টি তিনি দলের নির্বাচন কমিটির উপর ছেড়ে দিতে বলেছেন।

তবে উপরমহল থেকে শোনা যাচ্ছে দিল্লির কোনও কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়াতে পারে ভারতের এই প্রাক্তন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। রাজনীতিতে তার নতুন ইনিংস শুরু করার আগে গৌতম গম্ভীর বলেন, ‘ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এই প্রভাবশালী নেতৃত্ব আমাকে অনেক অনুপ্রাণিত করেছে। তাই আমি রাজনীতিতে পা দিয়েছি। বিজেপিতে আমাকে সদস্য হিসেবে নেওয়ার জন্য জেটলি স্যার এবং রবি শংকর স্যারকে অনেক ধন্যবাদ। দেশের স্বার্থে আমি সব সময় কাজ করতে রাজি। আমি সবসময়ই দলের জন্য নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব। ‘ এর আগে এক সর্ব ভারতের সংবাদমাধ্যমে গৌতম গম্ভীর জানিয়েছেন,’ ক্ষমতার পিছনে দৌড়ানো আমি পছন্দ করি না। সত্যি কথা বলতে কোনওদিন রাজনীতিতে আসবো এটা কোনদিন ধারণাও করতে পারিনি। কিন্তু সত্যি যদি আমাকে রাজনীতিতে পা দিতে হয় তাহলে আমার ক্রিকেটার জীবনটা দেখে যেন  বিচার না করা হয়। মানুষ গম্ভীরকে দেশ গড়ার কারিগর হিসেবে মনে করলে তবেই আমায় ভোট দেবেন। ‘ গৌতম গাম্ভীরের এভাবে রাজনীতিতে প্রবেশ করা আপনাদের কাছে কতখানি গুরুত্বপূর্ণ তা আমাদের অবশ্যই জানাবেন। আরো এরকম নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েব পোর্টালটিতে।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close