চন্দ্রযান-2 মিশন এখনও শেষ হয়নি! বিদেশী মিডিয়া দিল ISRO এর উপর পজেটিভ প্রতিক্রিয়া।

শনিবার চন্দ্রপৃষ্ঠে থেকে যখন 2.1 কিলোমিটার দূরে ছিল তখন ভারতীয় স্পেস রিসার্চ অর্থাৎ ইসরোর সদর দপ্তর এর সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়  বিক্রম (চন্দ্রযান-2) এর। চন্দ্রযান টু এর উপর শুধু ভারতেরই নজর ছিল না গোটা বিশ্বের এর উপর নজর ছিল। এই মিশনের জন্য ইসরো বিদেশ থেকেও অভিনন্দন পেয়েছিল। এই মিশন যাতে পুরোপুরি সফলতার জন্য প্রার্থনা করা হয়েছিল। কিন্তু একদম শেষ মুহূর্তে এসে হতাশার সম্মুখীন হতে হয় এই মিশনে যারা যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। তাই সারা ভারতবাসীও দুঃখী।

তবে আপনাদের জানিয়ে দিই মিশনের মাত্র 5% নষ্ট হয়েছে এবং বাকি 95% এখনো সঠিক রয়েছে। ল্যান্ডার এর সাথে এখনো যোগাযোগ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরোর আধিকারিকরা। ল্যান্ডার সাথে যোগাযোগ হয়ে গেলেই এই মিশন 100% সফল হবে। এই মিশনটি ভারতের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল এবং এখনও রয়েছে। ভারতের এই মিশনটি সারা বিশ্বজুড়ে খবরের শিরোনামে ছিল। ইসরোর প্রশংসা শুধু ভারতেই করা হয়নি সারা বিশ্ব জুড়ে করা হয়েছে।
এমনকি চন্দ্রযান টু নিয়ে বিদেশী মিডিয়ারাও পজেটিভ বার্তা দিয়েছেন।চন্দ্রযান টু নিয়ে বিদেশে মিডিয়ারা কি পজেটিভ বার্তা প্রদান করেছেন তা নিচে উল্লেখ করা হল।

আমেরিকান ম্যাগাজিন ওয়ার্ড – চন্দ্রযান-2 এর অবতরণ সম্পর্কে আমেরিকান মেগাজিন ওয়ার্ড লিখেছিল,’ ভারতের মহাকাশ কর্মসূচির জন্য এটি একটি বড় ধাক্কা তবে মিশন এখানেই শেষ হয়ে যায়নি।’

ওয়াশিংটন পোস্ট – ওয়াশিংটন পোস্ট চন্দ্রযান-2 এর মিশন সম্পর্কে লিখেছিল,’ ভারতের ল্যান্ডার অবতরণের চেষ্টা করার সময় ইসরোর সাথে যোগাযোগ হারিয়ে ফেলেছিল।’ এবং আরো লেখা হয়েছে, চাঁদে 34 টি সফট ল্যান্ডিং এর ক্ষেত্রে মাত্র 50% সফল হতে পেরেছে।

ভারত আশা করেছিল যে তাদের চন্দ্রযান-2 মিশন চীনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং চীনের পর চতুর্থ দেশ হবে।

দ্যা গার্ডিয়ান –ব্রিটিশ সংবাদপত্র দ্য গার্ডিয়ান চন্দ্রযান-2 সম্পর্কে তাদের নিবন্ধের শিরোনামে লিখেছিল, ভারতের ল্যান্ডার চাঁদে প্রবেশ করার একদম শেষ মুহূর্তে যোগাযোগ হারিয়ে ফেলে। এর সঙ্গে এটাও বলা হয়েছে,’ ভারত চলেছে যেখানে আগত কুড়ি বছর 40 বছর 50 বছর বা 100 বছরের মানুষের ভবিষ্যতের বসতি থাকবে।’

নিউইয়র্ক টাইমস:- নিউইয়র্ক টাইমস ভারতের ইঞ্জিনিয়ারিং অগ্রগতি এবং কয়েক দশকের অন্তরীক্ষ বিকাশকে তার বৈশ্বিক উচ্চাকাঙ্ক্ষার সাথে যুক্ত করেছে। নিউইয়র্ক টাইমস লিখেছিল, ‘কক্ষপথটি চালু রয়েছে, চন্দ্র পৃষ্ঠে অবতীর্ণ দেশগুলির অন্যতম সেরা ক্লাবে যোগ দিতে ভারত কিছুটা কম হয়ে গেল।’

লে ম্যান্ডে:- ফরাসী দৈনিক লে ম্যান্ডে চাঁদে অবতরণের সাফল্যের হার উল্লেখ করেছে। এতে বলা হয়েছে, “বিজ্ঞানীর মতে, মাত্র 45 শতাংশ এই মিশনে সফল হয়েছিল।” লে ম্যান্ডে তার নিবন্ধটি ‘ভাঙা স্বপ্ন’ শব্দটি দিয়ে শুরু করেছিলেন।

ওয়েবসাইটটি ন্যাশনাল অ্যারোনটিকস অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (নাসা) এক বিশেষজ্ঞের বরাত দিয়ে বলেছে, ‘কল্পনা করুন কোনও মহাকাশযান একটি বিমানের চেয়ে দশগুণ দ্রুতগতিতে এবং তারপরে আস্তে আস্তে পৃথিবীতে  নামে আরও গুরুত্বপূর্ণভাবে কোনও মানুষের হস্তক্ষেপ ছাড়াই কয়েক মিনিটের মধ্যে।