একাধিক বলি অভিনেত্রীর সাথে প্রেমে করলেও, শুধুমাত্র এই কারণে এখনো পর্যন্ত অবিবাহিত অভিনেতা অক্ষয় খান্না

অভিনেতা অক্ষয় খান্নার আজ আর কোনো পরিচিতির প্রয়োজন নেই। ক্যারিয়ারে তিনি একাধিক চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছেন এবং অভিনয়ই তাঁর পরিচয়। সবাই জানেন যে, অক্ষয় খান্না প্রয়াত অভিনেতা বিনোদ খান্নার ছেলে। ১৯৯৭ সালে ‘হিমালয় পুত্র’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তিনি বলিউডে তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেন। ফিল্মি কেরিয়ারের পাশাপাশি অক্ষয়ের ব্যক্তিগত জীবনও অনেকবার শিরোনামে এসেছে।

আজ পর্যন্ত বিয়ে করেননি এই অভিনেতা, কিন্তু একটা সময় ছিল যখন অনেক অভিনেত্রীর সঙ্গে তাঁর নাম জড়িয়ে ছিল। অক্ষয় খান্না ঐশ্বর্যের সাথে ‘আ আব লট চালে’ এবং ‘তাল’ সিনেমাতে কাজ করেছিলেন। রিপোর্ট অনুযায়ী, এই সিনেমার সময় দুজনেই খুব ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন। তাঁদের সম্পর্কের খবর মিডিয়াতেও বেশ শিরোনামে ছিল। ঐশ্বর্য তখন ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন। প্রায় এক বছর ধরে দুজনের সম্পর্ক ছিল।

তারপর ঐশ্বর্য সালমান খানের সাথে ‘হাম দিল দে চুকে সনম’ সাইন করেন এবং সালমান, ঐশ্বর্যের জীবনে প্রবেশ করেন এবং ঐশ্বর্য, অক্ষয়ের সাথে দূরত্ব তৈরি করতে শুরু করেন। এভাবেই ঐশ্বর্যের সঙ্গে অক্ষয় খান্নার সম্পর্কের ইতি ঘটে। ঐশ্বর্যের সাথে বিচ্ছেদের পর অক্ষয় খান্নার নাম করিশমা কাপুরের সাথে যুক্ত হয়েছিল এবং একটি সময় ছিল যখন করিশমা এবং অক্ষয় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে চলেছিলেন।

করিশমার বাবা রণধীর কাপুর মেয়ের বিবাহের প্রস্তাব পাঠিয়েছিলেন বিনোদ খান্নার বাড়িতে, কিন্তু মাঝপথে আসেন করিশমার মা ববিতা কাপুর। আসলে, করিনার ক্যারিয়ার তখন শীর্ষে ছিল এবং ববিতা চেয়েছিলেন করিশমা সেই সময় কেবল তাঁর ক্যারিয়ারে মনোনিবেশ করুক। এর মধ্যে ববিতা কাপুর না এলে, আজ করিশমা হতেন অক্ষয়ের স্ত্রী। এক সাক্ষাৎকারে বিয়ে না করার রহস্য খুলেছিলেন অক্ষয়।

তিনি বলেছিলেন যে, বেশিরভাগ লোকেরা দীর্ঘ সময়ের জন্য একটি সম্পর্কে থাকাকে স্বাভাবিক বলে মনে করেন, তবে তিনি তা মনে করি না। তিনি মনে করেন যে, যখনই তিনি চাইবেন, তখনই এক সম্পর্ক থেকে অন্য সম্পর্কে যাওয়ার স্বাধীনতা তাঁর থাকা উচিত। অভিনেতা বিশ্বাস করেন যে, দুজন মানুষের সম্পর্ক ততক্ষন থাকা উচিত, যতক্ষণ দুজনেই খুশি থাকে।

এরপর তাদের আলাদা থাকার স্বাধীনতা থাকতে হবে এবং ডিভোর্সই যে বিচ্ছেদের শেষ উপায়, এটা হওয়া উচিত নয়, দুজনেই যেন আলাদা হয়ে সুখ পায়। এর সঙ্গে অক্ষয় বলেছিলেন, তিনি সন্তান পছন্দ করেন না, তাই আজ পর্যন্ত তিনি বিয়ে করেননি, এছাড়াও অক্ষয় বলেন, তিনি কখনই বিয়ে করতে চান না। তিনি একা থাকতেই ভালোবাসে।