রাজ্যে রেশন দুর্নীতি রুখতে কড়া ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি খাদ্যমন্ত্রীর, চালু হল 2 টি টোল ফ্রি নাম্বার..

রেশনে দুর্নীতি নিয়ে বহুবার অভিযোগ উঠেছে এর আগে। এমনকি লকডাউন এর সময় সাধারণ মানুষদের পরিমান মত জিনিস দেওয়া হচ্ছে না বলেও অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে। তাই রেশনে দুর্নীতি রুখতে কড়া পদক্ষেপের হুশিয়ারি দিলেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এদিন তিনি জানিয়েছেন, লকডাউন উঠে গেলে অভিযুক্ত রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রেশন দোকানে দুর্নীতি ঠেকানোর জন্য প্রতি 4 টি রেশন দোকানে একটি করে পর্যবেক্ষক নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পূর্ব বর্ধমানের বিভিন্ন জায়গায় প্রতি গ্ৰাহক পিছু কম মাল দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গলসির 2 নম্বর ব্লকের খেতুড়া গ্রামে এমনই এক ঘটনা ঘটে। সেখান কার রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে, প্রত্যেকটি গ্রাহককে 500 গ্রাম করে কম আটা দেওয়া হচ্ছে। এমনকি সরকারের তরফ থেকে বিনামূল্যে দেওয়া রেশনেও কারচুপি করছে ওই ডিলার। এরপরে সেখানে অশান্তি সৃষ্টি হয় এবং ঘটনাস্থলে আসে সেখানকার স্থানীয় তৃণমূল নেতা আসগর আলি।

এরপর সেখানে পুলিশ আসে এবং পুলিশের সামনেই গ্রামবাসীরা মারধর করেন বলে অভিযোগ। গ্রামবাসী দের দাবি যে এই স্থানীয় তৃণমূল নেতার মদতেই এই রেশন ডিলার কম জিনিস দিচ্ছে রেশনে। এছাড়াও রেশন ডিলারের সংগঠনের অভিযোগ জেলায় জেলায় তৃণমূল নেতারা রেশন ডিলারের কাছে জোর করে ত্রাণ সামগ্রী গুলি নিয়ে নিচ্ছেন এবং তারা বিলি করছেন। ত্রাণসামগ্রী গুলির মধ্যে থাকছে চাল, ডাল। উত্তর দমদম পৌরসভার 21 নম্বর ওয়ার্ডের শ্রীনগর তৃণমূল কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে উঠে আসছে অভিযোগ।

সেখানকার এক রেশন দোকান থেকে ওই স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর ও তার সঙ্গীদের নিয়ে কোন দাম না দিয়ে 10 বস্তা চাল নিয়ে আসেন। কিন্তু রেশন দোকানের মালিক ক্যান্সারে রোগী হওয়াই সেরকম ভাবে প্রতিবাদ করতে পারেননি। রেশন ডিলারদের উদ্দেশ্যে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান যে, এবার থেকে চারটি রেশন দোকান পিছু একটি করে পর্যবেক্ষক রাখা হবে। প্রত্যেকটি রেশন দোকানে এপ্রিল মাসের মাল পৌঁছে গেছে এবং মে মাসের মালও খুব তাড়াতাড়ি রেশন দোকানে পৌঁছে যাবে। তিনিও জানিয়েছেন যে,এখন আপাতত রোজ রেশন দোকান খোলা থাকবে। খাদ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রেশন নিয়ে প্রশ্ন ও অভিযোগ করার জন্য সরকারের তরফ থেকে দুটি টোল ফ্রি নাম্বার চালু করা হয়েছে। এই টোল ফ্রি নম্বর দুটি হলো – 18003455505, 1967।