অবশেষে তিন মাস পর উঠানো হল শাহিনবাগের আন্দোলন, প্রতিবাদ মঞ্চ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিল দিল্লি পুলিশ…

দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ রোধে কলকাতা, দিল্লী, মুম্বাই , ব্যাঙ্গালোর সহ আরো 80 টি জেলাতে লকডাউন এর ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে।আর এই নির্দেশিকা যারা অমান্য করবেন তাদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রাজ্য সরকার গুলিকে কড়া নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।এর পাশাপাশি রাজ্যে করোনা সংক্রমণ রুখতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সকল জনগণকে ঘরের মধ্যে থাকার আবেদন করছেন এর পাশাপাশি এও আবেদন করেছেন রাজ্যের মানুষ যাতে কোন প্রকার আইন হাতে না তুলে নেয়।

গতকাল বিকেল থেকে কলকাতা সহ বিভিন্ন রাস্তায় রাস্তায় লকডাউন শুরু হয়ে গেছে পাশাপাশি শুরু করা হয়েছে পুলিশের টহল।অন্যদিকে দিল্লিতে এই করোনা সতর্কতায় কারফিউ জারি করা হয়েছে।আর এই কারফিউ জারি করার পরই দিল্লি পুলিশের উদ্যোগে খালি করে দেওয়া হল শাহীনবাগে সিএএ বিরোধী বিক্ষোভ চলছিল সেই জায়গাটিকে। গত টানা তিন মাস ধরে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছিল শাহিনবাগে বিক্ষোভকারীরা তবে এবার সেই বিক্ষোভ স্থান খালি করলেন বিরোধীরা।

আজ সকাল বেলায় দিল্লি পুলিশের এক বিরাট বাহিনী শাহীনবাগে পৌঁছায় এবং সেখানে বিরোধীরা হাঁটতে না চাইলে পুলিশ এবং বিরোধীদের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায় তারপর বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া হয় শাহিনবাগের আখড়াটি।এই বিষয় নিয়ে সংবাদমাধ্যমকে দিল্লি পুলিশের দক্ষিণ পূর্ব শাখার ডিসিপি জানান,প্রথমে তারা সেখানে গিয়ে এই শাহীনবাগে প্রতিবাদীদের বিনীতভাবে অনুরোধ করেন যাতে প্রতিবাদ মঞ্চ ছেড়ে দেয় তারা তবে কোনো প্রকারই তারা সে কথা শুনতে রাজি হয়নি পরবর্তীকালে তখন তাদের বিরুদ্ধে আইন লঙ্ঘনকারী ব্যবস্থা নেওয়া হয় এবং খালি করে দেওয়া হয় সেই বিক্ষোভ স্থানটি। এই ঘটনার দরুন আটক করা হয়েছে কয়েকজন CAA বিরোধীদের কেউ। এই মুহূর্তে দেশের বিভিন্ন জেলা গুলিতে চলছে লকডাউন, তার পাশাপাশি গোটা দিল্লিতে চলছে সেই একই পরিস্থিতি। এরকম এক অপ্রতিকর ঘটনা এড়াতে জায়গায় জায়গায় নিরাপত্তাকে আরো জোরদার করা হয়েছে।