অবশেষে ফাঁস হল নীতা আম্বানির ৪৪ লাখ টাকার পানীয় জলের আসল রহস্য

মুকেশ আম্বানি হলো বিশ্বের ধনী ব্যক্তি গুলির মধ্যে একজন। ভারতে তার আলাদা একটা স্থান রয়েছে। মুকেশ আম্বানির পরিবার প্রচুর সম্পত্তির মালিক এবং তারা রাজকীয় ভাবে তাদের জীবন যাপন করেন। তার পরিবারের লোকেরা বরাবরই সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চায় থাকেন। মুকেশ আম্বানির স্ত্রী নিতা আম্বানি তাদের আম্বানি ইন্ডাস্ট্রি সবকিছুই নিজে যাচাই করেন এবং তিনি বিলাসবহুল ভাবে জীবন যাপন করতে পছন্দ করেন।

আর এই বিলাসবহুল জীবন যাপনের জন্য তিনি তার চায়ের কাপ, ব্যাগ, পোশাক-পরিচ্ছদ হতে শুরু করে সব সামগ্রী অতি মূল্যের ব্যবহার করেন। আর এবার ভাইরাল হয়েছে এই বিষয় নিয়ে যে তিনি বিশ্বের সর্বোচ্চ মূল্যের জল পান করে থাকেন। বিশ্বের সর্বাধিক মূল্যের জল বলতে, অ্যাকোয়া ডি ক্রিস্টালো ট্রিবিউটো বা মদিগ্লিয়ানির কথাই বলা হয়েছে, যার ৭৫০ মিলিলিটার জলের ভারতীয় মুদ্রায় দাম ৪৪ লক্ষ টাকারও অধিক।

যা শুনে একপ্রকার সাধারণ মানুষের চোখ ছানাবড়া হয়ে যায়। কারণ, সাধারণ মানুষেরা এক লিটার জলের বোতল ২০ থেকে ৩০ টাকা দিয়ে কিনে থাকি। তাও খুব বেশি হলে ১০০ টাকা প্রতি লিটার কেনা হয়ে থাকে। কিন্তু একটি জলের বোতল তাও আবার ৭৫০ মিলিলিটার দাম ৪৪ লক্ষ টাকা তা শুনে আকাশ থেকে পড়ছে অনেকে। সম্প্রতি একটি ছবি যেটি ভাইরাল হয়েছে সেখানে দেখা যাচ্ছে নিতা আম্বানি একটি জলের বোতলে চুমুক দিতে। আর সেই ছবিটির সত্যতা যাচাই না করেই সেটি ভাইরাল হয়েছে।

এটি আসলে সঠিক ছবি নয়। কারণ এখন এমন ধরনের ছবি সহজেই পাওয়া যায়। আসল তথ্য যা জানা গিয়েছে তা হলো, আইপিএল চলাকালীন এক মিনারেল ওয়াটারের বোতল নিয়ে নীতা আম্বানিকে জল খেতে দেখা গিয়েছিল। সেই ছবিতেই টেকনোলজির কারসাজির সাহায্যে এই ৪৪ লাখ টাকার বোতলটিকে বসানো হয়েছে। যদিও এই বিষয়ে বহু ইউটিউবার তথা নিউজ চ্যানেল দাবি করেছেন নীতা আম্বানি নাকি সর্বোচ্চ মূল্যের জল পান করে থাকেন।

২৪ ক্যারেটর সোনা দিয়ে মোড়া নারীর মুখের আকৃতি এক বিশেষ দুষ্প্রাপ্য বোতলের ছবির সাথে এডিট করা হয়েছিল নীতা আম্বানির সেই ছবিটিকে। আর এই বোতলের নকশা তৈরি করেছিলেন ইতালির বিখ্যাত ভাস্কর্য শিল্পী ফার্নান্দো আলতামিরানো। আর বিশ্বের সর্বাধিক মূল্যের জল হিসেবে যাকে চিহ্নিত করা হয়েছে সেই, অ্যাকোয়া ডি ক্রিস্টালো ট্রিবিউটো আ মদিগ্লিয়ানি নিলামের জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছিল। তার মূল্য নির্ধারণ হয়েছিল ৬০ হাজার মার্কিন ডলার।