অবশেষে চাঁদের মাটিতেই মিলল ল্যান্ডার বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ,ছবি প্রকাশ করল মার্কিন গবেষক সংস্থা নাসা..

অবশেষে চন্দ্রযান 2 এর ল্যান্ডার বিক্রম এর খোঁজ মিলল চাঁদের মাটিতেই, ল্যান্ডার বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ যা খুঁজে বের করল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। এই দিনে মার্কিন সংস্থার তরফ থেকে টুইট করে জানানো হয় নাসার উপগ্রহের এলআরও ক্যামেরায় ধরা পড়েছে চন্দ্রযান টু এর ল্যান্ডারের ধ্বংসাবশেষের ছবি। ওই ছবিতে বিক্রম ল্যান্ডারের প্রস্তাবিত স্থান দেখানো হয়। নাসা একটি বয়ান জারি করে বলে, চাঁদের মাটিতে বিক্রম ল্যান্ডারের খোঁজ পাওয়া গেলো।

এক্ষেত্রে নাসা-র তরফ থেকে যে বয়ানটি জারি করা হয়েছে সেখানে জানানো হয়েছে তাঁরা 26 শে সেপ্টেম্বর ক্র্যাশ সাইটের ছবি জারি করে বিক্রম ল্যান্ডারের সঙ্কেত গুলোকে চিহ্নিত করার জন্য সবাইকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। তারপর শান্মুগা সুব্রামনিয়ম নামের এক ব্যাক্তি ধ্বংসাবশেষ চিহ্নিত করে এলআরও পরিযোজনার সাথে সম্প্রক করেন। নাসার সর্বশেষ প্রকাশিত ছবিটিতে এই জায়গাটিকে এস নামে পরিচিত করা হয়েছে। নাসার প্রকাশ করা এই ছবিতে নীল ও সবুজ রঙ করে বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ চিহ্নিত করা হয়েছে।

সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, নীল রঙ দিয়ে বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ চিহ্নিত করা হয়েছে।অন্যদিকে, সবুজ রঙ দিয়ে বোঝানো হয়েছে বিক্রমের ভেঙেপড়া টুকরোর ধাক্কায় সরে যাওয়া চাঁদের মাটিকে। যার পরে এলওআরসি দল চিত্রগুলির আগে এবং পরে তুলনা করে ল্যান্ডার সাইটের পরিচয়টি নিশ্চিত করেছে। শান্মুগা ক্র্যাশ সাইটের উত্তর-পশ্চিমে প্রায় 750 মিটার দূরে থাকা ধ্বংসাবশেষ এর পরিচয় নিশ্চিত করেছে। অক্টোবর মাসে নাসা বয়ান জারি করে বলেছিল যে, তাঁরা অর্বিটার দ্বারা সম্প্রতি তোলা ছবিতে চন্দ্রযান-2 এর ল্যান্ডারের খোঁজ পাওয়া যায় নি।

নাসার তরফ থেকে আরো জানানো হয় এটা হতে পারে যে যখন আমাদের অর্বিটর ছবি তুলছিল, তখন ল্যান্ডার বিক্রম ছায়ায় লুকিয়ে পড়েছিল। নাসার এক বৈজ্ঞানিক জানিয়েছিলেন যে, আমাদের অর্বিটর 14 ই অক্টোবর চন্দ্রযান-2 এর ল্যান্ডার বিক্রমের সাইটের ছবি নিয়েছিল, কিন্তু আমরা এমন কোন ছবি পাইনি যেখানে বিক্রম ল্যান্ডারকে দেখা যাচ্ছে। তবে যেমনটা আমরা জানি গত 7 ই সেপ্টেম্বর চাঁদের মাটিতে অবতরণের সময়ে অর্থাৎ সফট ল্যান্ডিং এ চন্দ্রযান 2 এর অরবিটারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ল্যান্ডার বিক্রমের। চাঁদের মাটি থেকে প্রায় 2.1 কিলোমিটার ওপরে সংকেত পাঠানো বন্ধ হয়ে যায়। এই বিক্রমের মধ্যেই ছিল রোভার প্রজ্ঞাণ। তখনই মনে করা হয়েছিল, চাঁদের বুকে কোথাও মুখ থুবড়ে পড়েছে এই ল্যান্ডার বিক্রম।

Related Articles

Close