অবশেষে দীর্ঘ অপেক্ষার পর বাংলা জুড়ে জাঁকিয়ে পড়তে চলেছে শীত, সুখবর শোনালো আবহাওয়া অফিস

গরমের দাবদাহে থেকে স্বস্তির রাস মানুষ খুঁজে পায় শীতে। এই শীতে লেপ-কাঁথা মুড়ি দিয়ে যেমন মানুষের ঘুমের দারুন আমেজ তৈরি হয়। আবারও তেমন খেয়ে পড়ে মানুষ আরাম করেও বাঁচতে পারে। আর শীতে তো মানুষের খাবারের নানারকম ব্যঞ্জন সামগ্রী পিঠে, পুলি, পায়েস এসব তো লেগেই আছে। আর এই শীতেরই অপেক্ষা করে থাকে মানুষ প্রায় ছয়-সাত মাস ধরে। অবশেষে বাংলায় আসতে চলেছে শীত। এমনই সুখবর শুনালো আলিপুর আবহাওয়া অফিস।

এইবার আকাশের নেই আর মেঘ। তাপমাত্রার পারদও নামতে শুরু করেছে হু হু করে। তাহলে শেষমেশ বাংলায় প্রবেশ করতে চলেছে শীত! এবার জেলা গুলিতে তাপমাত্রা নামতে শুরু করেছে। কিন্তু আবহাওয়া দপ্তর উত্তরবঙ্গের কিছু জেলায় দিয়েছে বৃষ্টির পূর্বাভাস।নিম্নচাপের মেঘ কাটার পর থেকেই শহরে তাপমাত্রার পারদ নামতে শুরু করেছিল। আর তার সাথে উত্তুরে হাওয়া প্রবেশ করছিল রাজ্যে। ফলে দুই মিলিয়ে শীতের প্রভাব বারছে। সকালের দিকে কলকাতা শহরের তাপমাত্রা ১৯৹ থেকে ২০৹ পর্যন্ত নেমে এসেছে। হালকা গরমের পোশাকও পরতে হচ্ছে। একেবারে ভোরে দেখা যাচ্ছে কুয়াশা। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছিল যে নভেম্বরের শেষে রাজ্যে শীত পড়বে যাকিয়ে। রবিবারের মধ্যে ১৮৹ নিচে নামতে পারে কলকাতার তাপমাত্রা। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে আরো তাপমাত্রা কমতে পারে এমন জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

কিন্তু ডিসেম্বরের মাসে আবারও নিম্নচাপ তৈরি হতে পারে। শীত আসতে বাধা তৈরি করতে পারে বঙ্গোপসাগরে ঘনীভূত এই নিম্নচাপ। নভেম্বরের শেষের দিকে দক্ষিণ আন্দামান সাগর-এর উপরে আবারও একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে চলেছে বলে জানিয়েছিল আবহাওয়া অফিস। আর সেটি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে উড়িষ্যা উপকূলে পৌঁছাবে। তার ফলে বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তাই ডিসেম্বরের প্রথম দিকে শীত পড়তে বাধা আসতে পারে।

এরমধ্যে উত্তরবঙ্গে যথারীতি তাপমাত্রার পারদ নামতে শুরু করেছে। আবহাওয়া অফিস থেকে জানানো হয়েছে দার্জিলিং, আলিপুর, কালিংপং জেলায় খানিকটা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। গত কিছুদিন ধরে উত্তর জেলাগুলিতে সকাল থেকে রয়েছে কুয়াশা যুক্ত পরিবেশ। আর তা বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশা কাটবে। রাতের দিকে তাপমাত্রা বেশ খানিকটা নামতে পারে এমনটাই জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে সকাল ও রাতের দিকে তাপমাত্রা খানিকটা বেশি পরিমাণে নেমে যাবে। ভোরে কুয়াশাচ্ছন্ন থাকবে এবং এখানেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আকাশ পরিষ্কার হবে।পূর্ব-পশ্চিম মেদিনীপুর এবং পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান সহ একাধিক জেলায় কমবে তাপমাত্রার পারদ। আগামী কয়েকদিনে সেটা আরও নামবে বলে জানিয়েছে। ডিসেম্বর মাসের প্রথমে কিছুটা তাপমাত্রার পারদ বাড়লেও, তীব্র শীতের প্রভাব শুরু হবে ১৫ ডিসেম্বর থেকে।