চন্দ্রযান-2 এর ল্যান্ডার নিখোঁজ হওয়াতে অনেক উপহাস করেছিলেন পাকমন্ত্রী, ল্যান্ডার খুঁজে পেতেই নিখোঁজ হয়ে গেলেন তিনি নিজেই।

ভারতের চন্দ্রযান-2 এর ল্যান্ডার হারিয়ে যাওয়াতে যদি কোন দেশ সবচেয়ে বেশি খুশি হয়েছিল তো সেটি ছিল পাকিস্তান। এরপরই পাকিস্তানের মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরীকে সোশ্যাল মিডিয়ায় লক্ষ্য করা যায় চন্দ্রযান টু এর অনেক মজা উড়াতে। তবে যেমন কি জানেন গতকাল ইসরোর বিজ্ঞানীরা জানান চন্দ্রযান 2 এর আর্বিটরের মাধ্যমে ল্যান্ডার বিক্রমের খোঁজ পাওয়া গেছে। চন্দ্রায়ণ 2 এর আর্বিটর ল্যান্ডার বিক্রমের একটি থার্মাল বা তাপীয় চিত্র তুলেছে।

তবে এর উপর এখন দেখার বিষয় ছিল যে, এবার পাকিস্তান এই বিষয় কী প্রতিক্রিয়া দেবে। তবে বলে রাখি ল্যান্ডার বিক্রম কে খুঁজে পাওয়ার পর থেকে পাকিস্তানের নেতা-মন্ত্রীরা যেন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে উধাও হয়ে গেছে। ল্যান্ডার খুঁজে পাওয়ার পর থেকেই ফাওয়াদ খান থেকে শুরু করে অন্যান্য পাক নেতামন্ত্রীদের এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।বিশেষত পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি এই বিষয়ে এখন কী মন্তব্য করবেন তা দেখা এখন খুবই একটা ইন্টারেস্টিং ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

যেমন কি জানেন ল্যান্ডার বিক্রম হারিয়ে যাওয়ার পরে সেই খবর পেয়ে সবচেয়ে বেশি খুশি হয়েছিল যদি কোন দেশ সেটি ছিল পাকিস্তান।যার পরে ফাওয়াদ চৌধুরী  ইসরো এবং ভারতের বিজ্ঞানীদের সম্বন্ধে অনেক কটূক্তি সম্পন্ন টুইট করেছিলেন। এর পরে, তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারত থেকেও বেশ পাল্টা কড়া প্রতিক্রিয়া পেয়েছিলেন। এইদিন ফাওয়াদ চৌধুরী বিক্রম নিখোঁজ হওয়ার পরে ট্যুইট করে লিখেছিলেন – প্রিয় “Endia” – যে  কাজটা পারো না সেটা করতে যাও কেন। পাকিস্তানের এই মন্ত্রী ইন্ডিয়াতে I এর জায়গায় E ব্যবহার করেছিলেন।

তবে এরপরেও এই মন্ত্রী থামেনি তিনি দ্বিতীয় টুইটে লিখেছিলেন- “শুয়ে পর ভাই, চাঁদের জায়গায় খেলনাটা মুম্বাইতে ল্যান্ড করে গেছে। #ইন্ডিয়া_ফেলড (So ja Bhai moon ki bajaye Mumbai mein utar giya khilona #IndiaFailed)”।আর তার পরই তার এই মন্তব্যের জেরে তাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল করা হয় তবে পাকিস্তানের মন্ত্রী আবার একটি টুইট করেন সেখানে লিখেন যে ভারতীয়দের প্রতিক্রিয়া দেখে অবাক হচ্ছে যে তারা চাঁদ মিশনের ব্যর্থতার জন্য আমাকে দোষারোপ দিচ্ছেন।

তিনি আরও লিখেছেন ভাই, আমরা বলেছিলাম যে এই অকর্মন্যদের উপর 900 কোটি টাকা লাগাও? এখন ধৈর্য ধরুন এবং ঘুমানোর চেষ্টা করুন। #Indiafaailed। তবে যখন থেকে ইসরো বিজ্ঞানীরা ল্যান্ড আর বিক্রমের খবর দিয়েছেন তখন থেকেই পাকিস্তানের মন্ত্রী ফাওয়াদ খান উদাও হয়ে গেছে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না লজ্জায় তিনি তার নিজের মুখ লুকিয়ে নিয়েছেন ভারতীয়দের কাছ থেকে। ভারতীয়রা এই পাকমন্ত্রীকে এতটাই ট্রল করেছেন যে এখন তার বর্তমান অবস্থা এমন হয়ে গেছে যে ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচির” মতো । কেউ কেউ তো আবার ট্রল করে মন্ত্রীকে বলেন এই  মন্ত্রী  চন্দ্রায়নে কতটা অর্থ ব্যয় হয়েছে সেটাই গণনা করতে পারছিল না তিনি আবার এসছে ভারতকে জ্ঞান দিতে।

তাছাড়া, কেউ কেউ পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রীর কাছে জিজ্ঞাসা করেন যে ভারত তো চাঁদে পৌঁছেছে, কিন্তু পাকিস্তান কোথায় পৌছালো?