ঠিক কী কারণে বাতিল হচ্ছে একের পর এক স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড, বিস্তারিত তথ্য জানালো ব্যাঙ্ক

বেশ কিছুদিন আগে সরকারের পক্ষ থেকে চালু করা হয় স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প।এটি ছিল বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি স্বপ্নের প্রকল্প। বাংলার সমস্ত মেধাবী এবং গরীব ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এই প্রকল্প খুবই লাভজনক হতে চলেছে । আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া যে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী আছে তারাই সবচেয়ে বেশি লাভবান হবে এই প্রকল্পে । এই প্রকল্পে বলা হয়েছে যে প্রত্যেক ছাত্র- ছাত্রী তাদের উচ্চশিক্ষার জন্য সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পেতে পারেন।

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প যে শুধুমাত্র বাংলায় হচ্ছে তা নয় অন্যান্য রাজ্য থেকেও এই প্রকল্পের জন্য আবেদন এসেছে একাধিক। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি রাজ্য থেকে আবেদন এসেছে । তবে বেশ কিছু পরিবারের আবেদন নাকচ করা হয়েছে। স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পে বলা হয়ে থাকছে শুধুমাত্র শিক্ষা বা উচ্চশিক্ষার জন্যই ছাত্রছাত্রীরা যে ঋণ পাবেন তা নয় পরবর্তীকালে তারা প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা দেবার জন্যও ঋণ পাবেন।Student credit card

উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের সূত্রে জানা যায় ১৯আগস্ট পর্যন্ত বহু ছাত্র-ছাত্রী এই আবেদন করেছে। তবে এতদিন পর্যন্ত যা আবেদন করেছে তার মধ্যে প্রায় সাড়ে ৩০০ আবেদন নাকচ করে দিয়েছে ব্যাংক। ঠিক কি কারণে নাকচ করা হল আবেদন তা জানতে চাইলে ব্যাংকের তরফ থেকে বলা হচ্ছে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী পড়ার মান ঠিক ভালো না মূলত সেই কারণেই বাতিল হয়েছে আবেদন গুলি।

ব্যাংকের তরফ থেকে আরও বলা হয়েছে ছাত্র-‌ছাত্রীদের পড়াশুনার মান ভালো না হলে পরবর্তীকালে তাঁরা কোন চাকরির পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারবে না। সেরকম পরিস্থিতির হলে স্টুডেন্টরা যে ঋণ নেবেন পরবর্তীকালে তারা তার শোধ দিতে পারবে না।

ফলে সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে ব্যাংক গুলিকে। সুতরাং এই কারণেই মেধার উপর ভিত্তি করে অনেক স্টুডেন্টদের ই আবেদন বাতিল করে দিয়েছে ব্যাংক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই জনপ্রিয় প্রকল্পে এখনো পর্যন্ত আবেদন করেছে ৭১ হাজার। তার মধ্যে মঞ্জুর হয়েছে ২৫০ টি আবেদন। ছাত্র- ছাত্রীদের শিক্ষা দপ্তরের পোর্টালের মাধ্যমে এই আবেদন করতে হবে । এছাড়া তারা wbscc.wb.gov.in ওয়েবসাইট থেকেও আবেদন করতে পারবে ।