লকডাউনের মাঝে স্বস্তি পেল রাজ্যের মানুষেরা, বিদ্যুতের বিল নিয়ে নতুন ঘোষণা রাজ্য সরকারের…

যেমনটা আমরা জানি দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী 14 এপ্রিল পর্যন্ত 21 দিনের জন্য লকডাউন এর ঘোষণা করেছেন। আর এই লকডাউন চলাকালীন সকল দেশবাসীকে ঘরের মধ্যে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কেবল মাত্র জরুরী পরিষেবা এবং নিত্য সামগ্রী জিনিসপত্রের প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হতে নিষেধ করেছেন তিনি দেশের জনগণকে।তাই এরকম এক আপৎকালীন পরিস্থিতিতে বন্ধ রাখা হয়েছে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে কল-কারখানা গুলিও, শুধুমাত্র খোলা রয়েছে জরুরী পরিষেবা এবং নিত্য জিনিসপত্রের দোকান দানি গুলি।

যেহেতু দেশজুড়ে জারি রয়েছে লকডাউন সেহেতু এই মুহূর্তে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষেরা নিজেদের কাজ হারিয়েছেন।তাই এবার সেসব মানুষদের কথা মাথায় রেখেই রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বিদ্যুতের বিল নিয়ে নতুন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। আর এই নির্দেশিকা রাজ্যের মানুষদের অনেকখানি স্বস্তি দিতে পারে।তবে আর দেরি না করে আপনাদের বলে দেওয়া যাক কী সেই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে।

এ বিষয়ে রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায় একটি নির্দেশিকা জারি করেছেন এবং তিনি জানিয়েছেন মার্চ মাসের শেষে অথবা এপ্রিল মাসের শুরুতে গত ফেব্রুয়ারি মাসে যে বিদ্যুৎ বিল এসেছে রাজ্যের বাসিন্দাদের ঘরে ঘরে সেই বিল জমা দিতে না পারলেও বিদ্যুৎ-সংযোগ বিচ্ছিন্ন করবে না রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন নিগম।তবে এখানেই শেষ নয় যদি কোন ব্যক্তি 30 এপ্রিলের মধ্যে যেকোনো বিল জমা দেন তাহলে সে ক্ষেত্রেও ওই ব্যক্তি থেকে আলাদা কোনো এক্সট্রা চার্জ বা জরিমানা নেওয়া হবে না বিদ্যুৎ দপ্তর নিগমের তরফ থেকে।

যেমনটা আমরা জানি এই মাসে যে বিদ্যুতের বিলটি এসেছে সেই বিলটি এসেছে গত বছরের মার্চ মাসের বিদ্যুতের বিলের পরিপ্রেক্ষিতে।কারণ এই বিষয় নিয়ে বিদ্যুৎ মন্ত্রী জানিয়েছেন বিদ্যুৎ কর্মীরা অনেকেই মানুষের বাড়ি যেতে চাইছেন না এই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ভয়ে, তাছাড়া আবার অনেকেরই বাড়িতে বিদ্যুৎ কর্মীদের প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না এই ভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার ভয়ে। তাই এরকম এক ভয়াবহ পরিস্থিতিতে রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন নির্গম এই পথ বেছে নিয়েছে। অন্যদিকে লকডাউন উঠে যাওয়ার পর বাড়ি বাড়ি গিয়ে রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন নিগমের কর্মীরা চেক করবে মিটার এই সময় যদি দেখতে পাওয়া যায় বিদ্যুৎ বিলে কোন হেরফের ছিল তাহলে সেটিকে পরবর্তীকালে অ্যাডজাস্ট করে দেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button