নির্বাচন কমিশনের কোপ, বন্ধ মমতার সরকারের জনপ্রিয় প্রকল্প

পশ্চিমবঙ্গে এখন বেজে গিয়েছে ভোটের দামামা। আর ভোটের ঘন্টা বাজার সাথে সাথেই নির্বাচন কমিশনের কোপে মুখে পরল রাজ্যের এক সরকারি প্রকল্প। নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, চোখের আলো’ প্রকল্পটি আপাতত বন্ধ করে দেওয়া হল। নতুন করে এই প্রকল্পের সুবিধা আর পৌঁছাবে না রাজ্যবাসীর কাছে। কমিশনের নির্দেশেই মেনেই এই পরিষেবা আপাতত বন্ধ। বিনামূল্যে রাজ্যবাসী এখন কিছুদিনের জন্য চক্ষু চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রকল্প ‘চোখের আলো’ এর পরিসেবা পাবেন না ।

 

রাজ্যবাসীর বিনামূল্যে চক্ষু পরীক্ষার উদ্দেশ্যে গত ৪ জানুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্ন থেকে চোখের আলো পরিষেবার উদ্বোধন করেন। আর এই প্রকল্প অনুযায়ী ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হয় রাজ্যবাসীর বিনামূল্যে চক্ষু পরীক্ষা শিবির। এই প্রকল্পের জন্য আগে থেকে ঠিক করা হয়েছিল যে আগামী তিন মাস ব্যাপী এই শিবিরটি ধারাবাহিক ভাবে চলবে। ডাক্তার, নার্স, ও স্বাস্থ্যকর্মীরা অনেকেই এই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন। রাজ্যবাসীরাও এই প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হয়েছিলেন। বহু মানুষের চোখের জটিল অসুখ, ছানি অপারেশন, চশমা সবই এই প্রকল্পের মাধ্যমে দেওয়া হচ্ছিল।

কিন্তু এরই মাঝে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে গেছে। লাগু হয়ে গিয়েছে নির্বাচনী আচরণবিধি। তাই নিয়ম অনুযায়ী এই সময়ে সরকারি প্রকল্পের কোনো কাজ হবে না। নির্বাচন কমিশনের নিয়ম মেনেই চোখের আলো প্রকল্পটিকে আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে।

চোখের আলো প্রকল্প

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৃষ্ট এই প্রকল্পটির দ্বারা পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যবাসী খুবই উপকৃত হয়েছিল। মাত্র সতেরো দিনে আড়াই লক্ষেরও বেশি মানুষের ঘরে গিয়ে পৌঁছে গিয়েছে চক্ষুরোগের চিকিৎসা। অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি নিয়ে এই শিবিরে পৌঁছে যেত ভালো ভালো চক্ষু চিকিৎসাকরা। ৫২৯টি গ্রাম পঞ্চায়েত এবং ৮৫টি পুর-এলাকার প্রায় আড়াই লক্ষেরও বেশি মানুষের চোখে নতুন আশার আলো দেখিয়েছিল এই প্রকল্পটি। নির্বাচন কমিশনের কোপের মুখে পড়ে এই প্রকল্পটি বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে পশ্চিমবঙ্গের প্রত্যন্ত গ্রামের মানুষজন অনেক সমস্যার মধ্যে পড়বেন বলে মনে করা হচ্ছে।

চোখের আলো প্রকল্প