Amazon- Flipkart কে টেক্কা দিতে ভারতে শুরু হচ্ছে ই-মার্কেট

কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স এর উদ্যোগে শুরু হল  বিক্রেতাদের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনে ভারত ই মার্কেট । এখন থেকে  অনলাইন শপিংয়ের জন্য আর কেবল  অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্টের উপর নির্ভর করতে হবে না। প্রায় আট কোটি ব্যবসায়ীদের সংগঠন CIT  দিল্লির ভেন্ডর মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন দেশে এই  ই মার্কেট চালু করেছে। কেবল ভারত নয়, বিশ্বের যে কোনও ই-বাণিজ্য পোর্টালের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করবে এই ই মার্কেট৷  সিএআইটির দাবি,  ভারত ই-মার্কেটে সস্তা  দামে পণ্য সরবরাহ করবে আর পরিষেবা দেবে৷ এতে  উপভোক্তাদের উপকার হবে।

দেশের বিভিন্ন রাজ্যের বড় বড় ব্যবসায়ীরা এই অ্যাপ্লিকেশনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। ই-বাণিজ্য পোর্টাল ভারত ই-বাজার চালু করার প্রথম পর্যায়ের অ্যাপ। এই পোর্টালে তাদের নিজস্ব “ই-শপ” তৈরি করতে ব্যবসায়ী এবং পরিষেবা প্রদানকারীরা একটি মোবাইল অ্যাপ চালু করেছে।

Advertisements

Advertisements

মোদি সরকারের নতুন প্রকল্পের দরুন এখন 60 বছরের বেশি বয়সিদের মাসে মিলবে 3000 টাকা, আবেদন পদ্ধতি জানতে

প্রেসিডেন্ট বিসি ভারতিয়া এবং জাতীয় সাধারণ সম্পাদক প্রবীণ খান্দেলওয়াল বলেছেন, “গত বছর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভারতীয় পণ্য ও প্রযুক্তি ব্যবহারের উপর জোর দিয়ে দেশের জনসাধারণের প্রতি সোচ্চার এবং স্বনির্ভর ভারত গড়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন। ক্যাট এই প্রচারণার আওতায় ভারত ই-মার্কেট পোর্টাল চালু করার পরিকল্পনা করেছে, যার মাধ্যমে ভারতীয় পণ্য প্রস্তুতকারী এবং ব্যবসায়ীরা এই পোর্টালে নিজস্ব ই-শপ খোলার মাধ্যমে স্থানীয় পণ্যগুলিকে প্রচার করতে পারে।

এই পোর্টালে মার্চেন্ট-থেকে-মার্চেন্ট (বি 2 বি) এবং মার্চেন্ট-টু-কনজিউমার (বি 2 সি) ব্যবসা খুব সহজেই করা যায়।”এই পোর্টালে ‘ই-শপ’ খুলতে হলে , প্রত্যেক ব্যক্তিকে  মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে নিজের নাম রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে।কোনও জিনিস বাইরে যাবে না৷ এটি সম্পূর্ণ ঘরোয়া অ্যাপ,তাই  সমস্ত ডেটা দেশের মধ্যেই থাকবে। এই প্ল্যাটফর্মের জন্য কোনও বিদেশী অর্থ গ্রহণ করা হবে না।

এই প্ল্যাটফর্ম কোনো চীনা পণ্য বিক্রি করবে না৷ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে স্থানীয় কারিগর, ছোট ব্যবসায়ী এবং  দেশের প্রতিটি কোণে ছড়িয়ে থাকা অন্যান্য জিনিস উৎপাদনকারী আর ব্যবসায়ীদের জন্য এই পরিষেবা উপলব্ধ করা হবে।