দুর্গাপূজোতেও চলবে একটানা বৃষ্টি, সপ্তাহ জুড়ে মাটি হবে পুরো শপিং, জানুন কী বলছে আবহাওয়া পূর্বাভাস

হাতে আর মাত্র কয়েকটা দিন। ক্যালেন্ডার অনুযায়ী আজকের দিনে পরের মাসে অষ্টমী। পঁচিশে সেপ্টেম্বর মহালয়া। কিন্তু এখনো পর্যন্ত রাজ্য থেকে বিদায় নেয়নি মৌসুমী বায়ু। তার ওপরে এ বছর পুজো সেপ্টেম্বর মাসের শেষেই চলে এসেছে অর্থাৎ পুজোয় বৃষ্টির আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।

উত্তরবঙ্গে অতিরিক্ত বৃষ্টি হলেও আপাতত দক্ষিণবঙ্গের আকাশ ঝকঝকে পরিষ্কার। তবে শনিবার এবং রবিবার কিছুটা বৃষ্টি বাড়বে রাজ্যে এমনটাই বলা হয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর থেকে। উত্তরবঙ্গে আজ এবং কাল বৃষ্টির পরিমাণ একইভাবে বেশি থাকবে। বাড়ি থেকে অতি ভারীর বৃষ্টির সতর্কতা দেওয়া হয়েছে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার জেলায়।

বজ্র বিদ্যুৎসহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে, মালদহ এবং উত্তর এবং দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায়। আগামী ২৪ ঘন্টায় একইভাবে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হবে উত্তরবঙ্গে, অর্থাৎ আপাতত উত্তরবঙ্গে বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস একই থাকবে।

এবার কথা বলি দক্ষিণবঙ্গের। আপাতত কোন ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই দক্ষিণের জেলাগুলিতে। শনিবার রবিবার কিছুটা বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলেও সেই ভাবে বাড়ি বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই কোথাও। তবে মুর্শিদাবাদ বীরভূম, পশ্চিম বর্ধমান, বাঁকুড়া এবং পুরুলিয়া জেলায় বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা বেশি হবে।

আজ কলকাতার আকাশ আংশিক মেঘলা। বৃষ্টি না হলেও জলীয় বাষ্প থাকায় আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি রয়েছে। আগামী ২৪ ঘন্টায় কলকাতার তাপমাত্রা থাকবে ২৭ থেকে ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। আজ সকালে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৪.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি। বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ ছিল ৫৮ থেকে ৯৩ শতাংশ

আপাতত মৌসুমী অক্ষরেখা, বিস্তৃত রয়েছে অমৃতসর, আম্বালা, বরেলি, আজাদগড় এবং বিহারের ছাপড়া হয়ে বাংলার মালদহের উপর। এছাড়া লাক্ষাদ্বীপ সংলগ্ন এলাকায় একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে যেটি রয়েছে মহারাষ্ট্র পর্যন্ত। তবে এখন ঝকঝকে আকাশ থাকলেও যেহেতু মৌসুমী বায়ু বাংলা থেকে বিদায় নেয়নি তাই আগামী দিনগুলিতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস থেকেই যাচ্ছে। অতএব দুর্গাপুজোর সময় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।