Categories
নতুন খবর বিশেষ

বিশ্বজুড়ে করোনার জেরে দিন দিন বাড়ছে মৃতের সংখ্যা, চীনের সঙ্গে সব সম্পর্ক শেষ করার হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

সারা বিশ্ব জুড়ে যে মহামারির কবলে পড়েছে মানবসভ্যতা, আর তার পেছনে যে চীন রয়েছে তা নিঃসন্দেহে বলা যেতে পারে। বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী দেশ আমেরিকাও এর আগে এই অভিযোগ করেছে। শুধুমাত্র আমেরিকা নয় সমস্ত দেশেই চীনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলেছে। আর তাই এবার থেকে চীন ও আমেরিকার মধ্যে যে সম্পর্ক ছিল তা পুরোপুরি ভেঙ্গে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রিপোর্ট অনুসারে ঘটনার জেরে এখনও পর্যন্ত সারা বিশ্বে মোট 3 লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। যেখানে শুধুমাত্র আমেরিকাতেই মৃত্যুর সংখ্যা মোট 80 হাজার। এ বিষয়ে আমেরিকার একটি নিউজ চ্যানেলে ট্রাম্প সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় জানিয়েছেন, ” আমরা চাইলে অনেক কিছুই করতে পারি। চীনের সাথে আমরা সব সম্পর্ক শেষ করে দেবো।” যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একাধিকবার চীনকে জানিয়েছিল যে, ইন্টার্নেশনাল কমিউনিটি দের ইউহানের ল্যাবরেটরীতে গিয়ে করোনাভাইরাস এর আসল উৎস স্থল সম্পর্কে তদন্ত করার জন্য অনুমতি দিতে।

কিন্তু সেই অনুমতি দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন। এই সম্পর্কে আমেরিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, ” আমরা সেখানে যেতে চাইলে তারা সরাসরি না বলে দিয়েছে। কারণ তারা নিশ্চয়ই জানে যে তারা আসলে কী করেছে। এটা নয় বোকামো করা হচ্ছে নয় ইচ্ছাকৃতভাবে করছে তারা।” আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আরও জানিয়েছেন, যেহেতু চীন থেকে করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে , তাই চীনের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে আমেরিকা। রিপোর্ট অনুসারে সবথেকে খারাপ অবস্থা রয়েছে নিউইয়র্কে।

সংক্রমণ রুখতে বিভিন্ন দেশের সীমান্ত সিল করে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সীমান্ত সিল করে দেওয়ার কারণে অন্তঃরাষ্ট্র বাণিজ্য বন্ধ হয়ে গেছে। এর ফলে ওষুধ ব্যবসায়ীরা পুরোপুরিভাবে মার খাচ্ছে। মার্কিন সেক্রেটারি অফ স্টেট মাইক পম্পে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, চীনের ওই ল্যাবরেটরী থেকেই করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি হয়েছে তার অজস্র প্রমাণ রয়েছে তাদের কাছে। কিন্তু এই করোনা ভাইরাস কী চীন আদৌ ইচ্ছাকৃতভাবে ছড়িয়েছে সেই ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি মুখ খুলতে চাননি। কিন্তু এ প্রসঙ্গে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, চীনের ওই ল্যাব থেকেই যে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে তার কোন প্রমাণ দিতে পারেনি আমেরিকা।

সব মিলিয়ে আমেরিকা ও চীনের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। এর পাশাপাশি আমেরিকা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তীব্র আক্রমণ করেছে। এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চীনকে সাপোর্ট করছে।