নতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

আপনি কি জানেন কেনো দেব দেবীর মন্দিরে ঘন্টা ঝোলানো থাকে! এর পেছনে আসল কারণটি প্রতিটি হিন্দুর জানা উচিত !

আজ আমাদের আলোচ্য বিষয় থাকবে একটু আত্মধিক। আপনার তো প্রায়ই সকলেই দেখেছেন যে মন্দিরের মধ্যে ঘন্টা লাগানো থাকে তবে এর পেছনের আসল কারণ কী? আর এ কারণটি যদি আমরা আপনাকে জানাই তাহলে আপনি ও জানলে অবাক হবেন। এছাড়াও আপনাদের জানিয়ে রাখি এই তথ্যটি প্রাচীন গ্রন্থ থেকে নেওয়া তথ্য। রাস্তার ধারের মন্দির হোক বা কোন বড় বিখ্যাত মন্দির ই হোক না কেনো , যে কোনো হিন্দু মন্দিরে ঢুকলেই যে জিনিসটি সবার চোখে পড়ে সেটি হল ঘন্টা। এই ঘন্টা বাজিয়ে ভক্তরা মন্দিরে ভগবানের দর্শন এর জন্য প্রবেশ করে থাকেন।


ঘন্টার ব্যবহার শুধু মন্দিরের বাইরে নয় মন্দিরের ভেতরে অনেক সময় দেখা যায়। শুধু তাই নয় ঘন্টার ধ্বনি ছাড়া মন্দিরের আরতি তো সম্ভব হয় না। যদি আপনি সারা পৃথিবী ঘুরে দেখেন দেবীর মন্দির খুঁজে পেয়ে যাবেন কিন্তু ঘন্টা হীন মন্দির খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাদের ভারতবর্ষে এমন কোন মন্দির নেই যেখানে ঘন্টা ঝুলে না। তাহলে কি হিন্দু শাস্ত্রে ঘন্টা বাজানো টা এক প্রকার প্রথা না এর পেছনে রয়েছে কোন বিজ্ঞানসম্মত কারণ । ঠিক কি কারণে ঘন্টা ঝোলানো হয় এবং কি কারনে ঘন্টা বাজানো হয় এটি থাকবে আজকে আমাদের সম্পূর্ণ আলোচ্য বিষয়। আরতির সময় কালিন ঘন্টা বাজানো হয় পৌরাণিক তথ্য অনুযায়ী মনে করা হয়, ঘন্টার ধ্বনি অশুভ শক্তিকে দূরে রাখে। এছাড়াও এর পিছনে রয়েছে আরেকটি কারণ ।


বলা হয় , দেবতা সর্বদা জাগ্রত ঘন্টাধ্বনি দিয়ে কখনই দেবতা কে জাগ্রত করা হয় না। ভক্ত যখন মন্দিরে প্রবেশ করে তখন ভক্ত তার নিজের অস্তিত্বকে বোঝানোর জন্য ঘন্টা বাজায়। অর্থাৎ এই ঘন্টার ধ্বনি ভক্তদের আত্মাকে তিক্ত করে। ভক্তের ঔম ধ্বনির সাথে যখন ঘণ্টাধ্বনি মিলিত হয় একটা আলাদাই আত্মাধিক শক্তির আবির্ভাব ঘটে। শুধু তাই নয়, আরতির কালে ঘন্টা ধ্বনি দূরবর্তী ভক্তদের সূচিত করে। অনেক শাস্ত্র বলে, ঘন্টা নাকি কালের প্রতীক, শত জনমের কথা ঘন্টা নাকি বলে দেয়। তামা লোহা , দস্তা ,সোনা , রুপা এই পঞ্চভূতের তৈরি ঘন্টা নাকি পঞ্চভুতের প্রতীক । স্কন্দ পুরাণ অনুযায়ী ঘণ্টাধ্বনি মানুষের শত জন্মের পাপকে বিনষ্ট করে।

এই খবরটি কারোর কোন ধর্ম বা কোন নির্দিষ্ট চরিত্র ভিত্তিক নয় এবং খবরটি কাউকে কষ্ট দেওয়ার জন্য লেখা হয়নি । শুধুমাত্র হিন্দু পুরাণ ও পৌরাণিক তথ্যের উপর ভিত্তি করে এ খবরটি তৈরি করা হয়েছে। সুতরাং , আপনাদের খবরটি ভালো লেগে থাকলে হিন্দু ঘন্টার সম্বন্ধে আপনাদের কাছের মানুষকে জানার সুযোগ করে দিন।

Related Articles

Back to top button