আপনি কী জানেন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ রাধাকে বিয়ে করেননি কেন?

রাধা কৃষ্ণের মধ্যে কোন বৈবাহিক সম্পর্ক নেই তবুও আমরা কৃষ্ণকে রাধা ছাড়া কল্পনাই করতে পারি না। যুগ যুগ ধরে মানুষ কৃষ্ণের সাথে রাধা কে আর রাধার সাথে কৃষ্ণ কে দেখেছেন তাদেরকে কখনো আলাদা করা যায়নি। এছাড়াও প্রেমের উদাহরণ হিসেবে আমরা রাধা-কৃষ্ণ কেই দিয়ে থাকি। আমরা জানি প্রেমের সীমা ছাড়িয়ে গেলে তা শেষমেশ বিবাহ সম্পর্কের বন্ধনে আবদ্ধ হয় এবং একে অপরের হাত ধরে কেটে যায় বাকি জীবনটা। আপনাদের মনে অনেকেরই প্রশ্ন জাগতে পারে, কৃষ্ণ রাধাকে এতটা ভালোবাসতেন যখন তাহলে কৃষ্ণ রাধাকে কেন বিয়ে করেননি ?

কেউ কেউ হয়তো তার উত্তরটা জানেন কিন্তু অনেকে হইতো জানেন না। কৃষ্ণের অনেক স্ত্রী থাকলেও কৃষ্ণ পাশে আমরা বরাবরই রাধাকেই পায়। তবুও কৃষ্ণ রাধাকে বিয়ে করেননি কেন এটা জানতে হলে পুরো নিউজটি পড়ুন। হিন্দু পুরাণ অনুসারে রাধিকা হল লক্ষ্মীর একটি অংশ। তার ও কৃষ্ণের প্রেমকে দেখানো হয়েছে ভক্তির চরম স্তরে।

এই প্রেমের জুটিকে কখনোই বৈবাহিক বন্ধনে আবদ্ধ করা যায়নি। ভগবান কৃষ্ণ প্রতিটি যুগে নানা রকম অবতার নিয়েছেন। বিন্দাবনের ঘটনাটা আমাদের সবারই জানা কিন্তু তার পরেই ঘটে ছিল সেই ঘটনা , যখন কৃষ্ণ বৃন্দাবন ছেড়ে মথুরায় তার মামা কংস কে হত্যা করার জন্য যায় সেই মুহূর্তে রাধিকা কৃষ্ণ কে প্রশ্ন করেছিলেন, ” হে প্রভু তোমাকে আমি মন প্রাণ দিয়ে এত ভালবাসি তবুও তুমি আমাকে ছেড়ে চলে যাচ্ছ কেন ” ?

এই বিষয়ে শ্রীকৃষ্ণ বলেছিলেন, ” বিবাহ এর জন্য প্রয়োজন হয় দুটি আলাদা সত্ত্বার অর্থাৎ দুটি আত্মার কিন্তু তুমি আর আমি কোন আলাদা সত্ত্বা নয়, আমরা দুজন শরীর গত ভাবে আলাদা হলেও দুজনের আত্মা একটাই “। অর্থাৎ শ্রীকৃষ্ণ ও রাধা একই আত্মার দুটি স্বরূপ, তাহলে তিনি কি করে রাধিকাকে বিয়ে করবেন!

তবুও শ্রী কৃষ্ণ বৃন্দাবন ছেড়ে যাওয়ার সময় রাধিকাকে আশীর্বাদ করেছিলেন, ‘যখনই শ্রীকৃষ্ণ ও রাধার প্রেম ভালবাসা নিয়ে কথা হবে তখনই রাধা নামটি প্রথমে আসবে ‘। বন্ধুরা আপনি খেয়াল করে দেখবেন যে, কখনো আমরা ‘ কৃষ্ণ রাধা ‘ বলি না, সব সময় ‘ রাধা কৃষ্ণ ‘বলে থাকি।

আশা করি বন্ধুরা পোষ্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে।পোস্টটি ভালো লেগে থাকলে আপনার আত্মীয়দের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।