আপনি কী জানেন মহাদেবের শিব পুরাণ অনুযায়ী আগাম মৃত্যুর সংখ্যা গুলি কী কী? বিস্তারিত জানতে

ভগবান শিবকে আমরা শিব পুরাণ মতে অমর বলে থাকি। হিন্দু ধর্মের মানুষেরা মহাদেবকে ভীষণভাবে ভক্তি করে। মহাদেব অসীম ক্ষমতার অধিকারী ও চিরন্তন। হিন্দু ধর্মের পুরাণ থেকে শুরু করে নানা রকম ধর্মীয় গ্রন্থে মহাদেব এর নানা রকম কাহিনী উল্লেখ আছে। যার মধ্যে অন্যতম একেবারে শিব পুরাণ। শিব পুরাণে মহাদেব সমন্ধে নানা রকম অজানা তথ্য উল্লেখ আছে। তারই মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি তথ্য হল শিব পুরাণ মতে মৃত্যুর আগাম বেশ কয়েকটা সংকেত পাওয়া যায়।

বিস্তারিত পড়ুন…

১) শিব পুরাণ মতে, যদি কোন ব্যাক্তি আগুনের আলো দেখতে পান না, এবং চারিদিকে অন্ধকার দেখেন। তবে সেই ব্যাক্তির মৃত্যু আসন্ন।

২) শিব পুরাণ মতে, কোন ব্যাক্তির শরীরে সাদা, হলুদ বা অন্যান্য লাল দাগ দেখা যায় তবে এই লক্ষণ গুলি হতে পারে মৃত্যুর কারণ।

৩) শিব পুরাণ মতে, যদি কোন ব্যাক্তি সূর্য বা চাঁদের পাশে কোন উজ্জ্বল বৃত্ত দেখেন বা লাল বা কালো রঙের বৃত্ত দেখে থাকেন তবে সেটিকে মৃত্যু সংকেত হিসাবে ধরা হয়।

৪) যদি কোন ব্যাক্তির নিজের প্রতিফলন দেখা বন্ধ হয়ে যায় মানে সে যদি নিজেকে আয়নার সামনে না দেখতে পান বা তেল জল দেখতে না পান তবে এটিও একটি গুরুত্বপূর্ণ সংকেত মৃত্যুর বলে ধরা হয়।

৫) শিব পুরাণ মতে, কোন ব্যাক্তির যদি শরীরের বেশ কিছু ইন্দ্রিয় কাজ না করে, যেমন, জিভ, নাক, কান, মুখ তবে সেই ব্যাক্তির মৃত্যু আসন্ন।

৬) শিব পুরাণ অনুসারে বলা হয়েছে, যদি কোন মানুষের হঠাৎ এক সপ্তাহ ধরে লাগাতার হাত কাঁপতে থাকে তবে সেটিও একটি মৃত্যুর আগাম লক্ষণ।

৭) কোন ব্যাক্তির আশেপাশে সে যদি হঠাৎ দেখে নীল মাছি ঘুরে বেড়াচ্ছে বা কারো মাথার কাছে হঠাৎ কাক বা শকুন মাথার কাছে ঘুরে বেড়ায় তবে সেটি মৃত্যুর অশনি সংকেত বলে ধরা হয়।

৮) শিব পুরাণ অনুসারে সৌর জগতের কোন রকম নক্ষত্র যদি কোন ব্যাক্তি না দেখতে পান বা উল্কা বৃষ্টি দুপুরে বা রাতে রামধনু দেখতে পান তবে সেটি মৃত্যুর সংকেত।