লক্ষ্মীপূজোতেও বাংলায় জারি থাকবে দুর্যোগ! দিনভর ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস আবহাওয়া দপ্তরের

বৃষ্টি! বৃষ্টি! বৃষ্টি! এবার বৃষ্টিতে মানুষের জীবনযাপন বিপর্যয়ের মুখে। ঠিক করে না হচ্ছে কোন ফসল, না হচ্ছে কোন ব্যবসা-বাণিজ্য। এককথায় বৃষ্টিতে মানুষ নাজেহাল। কলকাতার মতো শহরে অতিবৃষ্টির ফলে বন্যার জলে মানুষকে দুর্ভোগ সহ্য করতে হয়েছে বহুদিন ধরে। আর এই বৃষ্টির প্রভাব থেকে বাদ যাচ্ছেনা উৎসব গুলিও। দুর্গা পুজোর কিছুদিন আগে পর্যন্ত বৃষ্টি ছাড়েনি এই বাংলায়। এমনকি দুর্গাপূজাতেও কিছু কিছু জায়গায় এই বৃষ্টি দেখা গিয়েছে, তবে তা সামান্যই। কিন্তু সামনে লক্ষ্মীপুজোয় বাংলার মানুষও ছাড় পাবে না এই বৃষ্টি থেকে। সোমবার সারারাত বৃষ্টির পরেও মঙ্গলবার সকালে থেকে বৃষ্টি র প্রাদুর্ভাব দেখা যাচ্ছে কলকাতাসহ তার আশেপাশের জেলাগুলিতে।

আর এই বৃষ্টি শুধু কোলকাতা নয় সমগ্র বাংলা জুড়েই কম বেশি হারে দেখা যাবে। কারণ এই বৃষ্টি নিম্নচাপ এর ফলে সৃষ্টি। আর এই নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়েছে বঙ্গোপসাগরে। মঙ্গলবারও সারা দিন বৃষ্টি হতে পারে। এমনকি লক্ষ্মী পূজার দিন অর্থাৎ বুধবারেও এই বৃষ্টি চলবে আর। এই বৃষ্টির কবলে পড়তে হবে উত্তরবঙ্গের মানুষকেও। আর এই আবহাওয়ার পরিবর্তন হতে পারে বুধবার বিকেল থেকে। এমনটাই মনে করছে আবহাওয়া দপ্তর।

দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া-

আবহাওয়া দফতরের সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৪ ঘন্টায় অর্থাৎ ২০ অক্টোবর বুধবার সকালের মধ্যে উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ভারী বৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুরে ঘন্টায় ৩০ থেকে ৪০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। বাকি জেলাগুলির কোথাও কোথাও বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হবে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। পরবর্তী ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ ২১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালের মধ্যে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টির পরি্মাণ কমে গেলেও মুর্শিদাবাদ এবং বীরভূমে ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

উত্তরবঙ্গের আবহাওয়া-

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ ২০ অক্টোবর বুধবার সকালে মধ্যে দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ারে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ অতি ভারী বৃষ্টি হবার সম্ভাবনা রয়েছে। এমনকি জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর দক্ষিণ, দিনাজপুর এবং মালদা জেলাতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যে কারণে হিমালয় সংলগ্ন ৫ জেলার জন্য কমলা সর্তকতা জানানো হয়েছে আবহাওয়া দপ্তর থেকে। পরবর্তী ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ ২১ শেঅক্টোবর, বৃহস্পতিবার সকালের মধ্যে হিমালয়ের সংলগ্ন পাঁচ জেলায় অতি ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এর ফলে আগামী পাঁচ দিনের তাপমাত্রা পরিবর্তনের সেরকম কোনো সম্ভাবনা নেই। এই দক্ষিণা বায়ুর প্রভাবে শুধু উত্তরবঙ্গের নয় উত্তর-পূর্ব ভারতের প্রভাব পড়তে পারে