নির্লজ্জের মত বিজেপির বেঞ্চে বসেছেল মুকুল রায়, উনি কী ত্রিশঙ্কু! বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ

মুকুল রায় গেরুয়া শিবির ছেড়ে ঘাসফুল শিবিরে যোগ দেওয়ার পর থেকেই তাঁর সাথে গেরুয়া নেতাদের চাপা বিরোধের সঞ্চার হয়। এদিন মুকুল রায়কে বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এক সাংবাদিক বৈঠকে কটাক্ষ করতে গিয়ে বলেন ‘উনি বিজেপির টিকিটে জিতলেন, তারপর গিয়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন। এখন আবার নির্লজ্জের মতো আমাদের বেঞ্চেই বসে আছেন। উনি কি PAC-এর চেয়ারম্যান হবে বলে ত্রিশুঙ্কু হয়ে গেলেন নাকি?”

২১ সালের বিধান সভা ভোটের ফলাফল বের হবার পর থেকেই কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক মুকুল রায় (Mukul Roy) কোনো রাজনৈতিক গতিবিধিতে নিজেকে লিপ্ত করেননি। তারপর থেকেই ওনাকে নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হয়। তখন তিনি ‘গণতান্ত্রিক ভাবে অগণতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধে ওনার লড়াই চলবে।” কিন্তু তারপরও তিনি গেরুয়া শিবির ছেড়ে ঘাস ফুল শিবিরে যোগদান করেন।মুকুল রায় দিলীপ ঘোষ

পুনর্বার তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরও কৃষ্ণনগরের বিধায়ক বিধায়ক পদ থেকে মুকুল রায় ইস্তফা দেন। তবে সেই পদ কেড়ে নেওয়ার জন্য বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বহু প্রচেষ্টা চালানোর পরও তিনি সফল হননি। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন যে মুকুল রায় এখনও বিজেপির সদস্য।

মুকুল রায় বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যাওয়ার পর গতকাল ছিল বিধানসভার প্রথম অধিবেশন। আর মুকুল রায় এখন শাসক দলে বর্তমান থাকা সত্ত্বেও তাকে বসতে হয় বিরোধী শিবিরের টেবিলে। আর এই নিয়েই অধিবেশন শুরুর প্রথম থেকেই চরম হাঙ্গামার সঞ্চার হয়। যে কারণে রাজ্যপাল ভাষণ না দিয়েই বিধানসভা থেকে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হন। আর তখনই দিলীপ ঘোষ তাঁকে কটাক্ষ করেন।