ওপার দেশে অত্যাচারিত শুধুমাত্র হিন্দুরায় এদেশেই থাকবে, বাংলাদেশি মুসলিম ও রোহিঙ্গাদের তাড়ানো হবে: দিলীপ

গত মঙ্গলবার দিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি কলকাতার মঞ্চ থেকে বলে গেলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যতই এনআরসি নিয়ে বিরোধিতা করুক তাতে বিজেপি থেমে যাবে না সারা দেশ জুড়ে করা হবে এনআরসি।এনআরসি হল বিজেপির ঘোষিত করা একটি সিদ্ধান্ত সেটি সারাদেশে লাঘু করা হবে।এর সঙ্গে তিনি এও জানান যে বাংলায় নাগরিকপঞ্জি গঠন করার ক্ষেত্রে দৃঢ়প্রতিজ্ঞে রয়েছে কেন্দ্র সরকার। আসামের এনআরসি চূড়ান্ত তালিকায় বাদ পড়েছে 19 লক্ষ মানুষের নাম গতকাল এর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

দুপুরে সিঁথি থেকে শ্যামবাজার পর্যন্ত তিনি এই বিষয়ক পদযাত্রাও করেন। আর তারপর তিনি এই বিষয় বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ ও দাগেন।তিনি বলেন বাঙ্গালীদের এবার বাংলা থেকে উচ্ছেদ করতে চাইছে বিজেপি সরকার। তবে তৃণমূল নেত্রীর এমন অভিযোগের জবাব দিলেন দিলীপ ঘোষ।এই দিন দিলীপ ঘোষ বলেন আমরা কাউকে তাড়াতে চাইনা বাংলাদেশের মুসলিম রোহিঙ্গারা মমতার আশ্রয়ে থাকে , তবে হিন্দুরা এই দেশেই থাকবে।

যেমন কি জানেন আসামে নাগরিক পঞ্জিতে 19 লক্ষ লোকের নাম ওঠেনি। যার মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করে বলেন 12 লক্ষ হিন্দু লোক রয়েছে এর মধ্যে। এইদিন দিলিপ আশ্বাস দিয়ে বলেন হিন্দুদের ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই এই সমস্ত বিরোধীদল গুলি এক হলেও এবার বাংলায় এনআরসি কে রুখতে পারবে না।এই দিন রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেন যে আমরা কাউকে তাড়াতে চাইছি না ভারতের উন্নয়নের পথে বাধা দিতে চাই, দেশের আইন-শৃঙ্খলাকে বাধা দেয়, এখানকার মানুষকে অসুস্থ করে তোলে।

দেশের প্রায় 2 কোটি বাংলাদেশী মুসলিম ঢুকেছে যার মধ্যে এক কোটি রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের। আর এক কোটি পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীর চলে গিয়েছে।ওপার বাংলায় অত্যাচারিত পিড়িতদেরই ভারতে থাকার সুযোগ দেবে। হিন্দুদের নাগরিকত্ব দেবে। তবে এখানেই শেষ নয় এই দিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন বাংলায় এনআরসি হবে না বাংলা কখনো মাথা নত করবে না, বাংলাকে হিংসা করে লাভ হবে না। আর বাংলায় দু’কোটি তো দূরের কথা আগে দুজনের গায়ে হাত দিয়ে দেখাক।

আর তারপরই রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ বাবুও পাল্টা মন্তব্য করেন তিনি বলেন মমতা ব্যানার্জির ক্ষমতা সকলেই জেনে গেছে এর আগেও তিনি নোটবন্দির বিরোধিতা করেছিলেন, জিএসটি বিরোধিতা করেছিলেন তবে তার বিরোধিতার কোন লাভ হয়নি সবই চালু হয়েছিল। এমনকি 370 ধারার ও বিরোধিতা করেছিলেন তিনি তবে আমরা তার তুলে নিয়ে দেখিয়েছি। এমনকি তিনি তিন তালাকের ও বিরোধিতা করেছিলেন তবে সেটাও আমরা করে দেখিয়েছি। এবার উনাকে বেঁচে থাকতে দেখতে হবে বাংলায় এনআরসিকে, বাংলায় ঢুকে থাকা অবৈধভাবে বিদেশীদের ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করা হবে। মন্তব্য রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের।

Related Articles

Close