সাধারণতন্ত্র দিবসে দলীয় কার্যালয়ে উল্টো জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বিড়ম্বনায় দিলীপ ঘোষ

দেশজুড়ে আজ পালিত হচ্ছে প্রজাতন্ত্র তথা সাধারণতন্ত্র দিবস (Republic Day) আর আজই  জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে বিড়ম্বনায় পড়লেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দেশপ্রেম, দেশভক্তি নিয়ে কিছু কথা বলেন তিনি৷ এর পরেও বিজেপি নেতার কাণ্ডে অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির। এই ঘটনাকে ‘অস্বস্তিকর’ বলেছেন বিজেপি সাংসদও।

সোমবার রাতে তারাপীঠে গিয়েছেন দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। মঙ্গলবার সকালে তারাপীঠ  মন্দিরে তিনি  পুজো দেন। পুজো দেওয়ার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ৷  জয়ের বিষয়ে আত্মবিশাসী তিনি৷  ২২০টিরও বেশি আসন বিজেপি পাবে বলেই আশাবাদী দিলীপ ঘোষ৷

প্রজাতন্ত্র দিবসের লাল কেল্লার দখল নিল কৃষকরা, উড়ানো হল বিক্ষোভকারীদের পতাকা

নেতাজি জন্মজয়ন্তীতে ২৩ জানুয়ারি  ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের অনুষ্ঠানে মমতা ব্যানার্জি মঞ্চে উঠতেই  ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেওয়া হয়৷ তিনি মঞ্চ থেকে চুপচাপ বেরিয়ে যান। এই ধরনের ঘটনায় অনেকেই সমালোচনা করেছেন গেরুয়া শিবিরের৷ কিন্তু এই ঘটনার প্রেক্ষিতে দিলীপ ঘোষ জানান,  এবার থেকে সর্বত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লক্ষ্য করে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দেওয়া হবে।

এরপর তারাপীঠ থেকে বীরভূমের (Birbhum) রামপুরহাটের দলীয় কার্যালয়ে চলে যান দিলীপ ঘোষ। সাধারণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন।  দিলীপ ঘোষ পতাকা তোলার সময় দেখতে পান পতাকা উলটো। তবে ততক্ষণে উলটো পতাকাই টাঙানো হয়ে গিয়েছে।

তারপর আবার পতাকা  সঠিকভাবে উত্তোলন করা হয়।  বিজেপি রাজ্য সভাপতি  ঘটনাটিকে ‘অস্বস্তিকর’ বলে দাবি করেছেন। তাঁর দাবি, “পতাকা তোলার আগে পরীক্ষা করা হয়নি। জাতীয় পতাকাকে অসম্মান করার কোনও উদ্দেশ্য ছিল না। ভুল করেই হয়েছে। সংশোধন করা হয়েছে। যাঁরা দায়িত্বে ছিলেন তাঁদের বলেছি এমন ভুল যেন আরও কখনও না হয়।”

দিলীপ ঘোষের কাণ্ডকারখানা নিয়ে ইতিমধ্যেই  সমালোচনার ঝড় উঠেছে। দেশপ্রেম নিয়ে অনেক কিছু বলার পরেও কীভাবে উলটো পতাকা (National Flag) উত্তোলন করলেন, সেই প্রশ্ন ইতিমধ্যেই বিভিন্ন মহলে উঠতে শুরু করেছে।