জানেন কী এই ছোট্ট মেয়ে পেয়েছেন বিশ্বের সেরা সুন্দরী শিশুর শিরোপা, দেখে নিন তার আসল পরিচয়

এই ছোট্ট সোনার টুকরো পরী জন্মানোর পর থেকেই তার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতন ভাইরাল। নীল চোখ কোকড়ানো চুল গোলাপি ঠোটের জাদুতে মজেছে গোটা বিশ্ব। গোটা বিশ্বের অনেক বড় বড় নায়িকাদের তুলনায় কোন অংশে কম নয় এই ছোট্ট শিশুটি । যার ফ্যান ফলোইং গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই শিশুটির কোন ছবি পোস্ট হওয়ার সাথে সাথেই ফ্যান ফলোয়ার্স দেন লাইক ও কমেন্ট এ বোঝা যায় মেয়েটি চারিদিকে কিভাবে ছড়িয়ে পড়েছে।

যে ছোট্ট শিশুটি গোটা বিশ্বের কাছে ক্রাশ তার বাড়ি ইরানে। শিশুটির নাম অনাহিতা হাসেম জাহেদ। তার বাড়ি ইরানের ইসফাহান শহরে। ২০১০ সালে ১০ জানুয়ারি মা-বাবার কোল আলো করে জন্ম নেয় এই ছোট্ট পরীটি। মনভোলানো ছোট্ট শিশুর খিলখিল করা হাসি বিশ্বের তাবড় তাবড় মানুষকে নিজের দিকে তাকাতে বাধ্য করেছে। তবে এত ফ্যান ফলোয়ার্স সামলানো মুখের কথা নয় ছোট থেকেই শিশুটিকে সঙ্গ দিয়েছেন তার মা।

মেয়ের এত সুন্দর মুখ দেখে মাঝে মাঝে নিজেও অবাক হয়ে পড়েন। ২০১৮ সালে অনাহিতার প্রথম ছবি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার হয়েছিল তারপর থেকে কয়েকদিনের মধ্যেই সেলিব্রেটি হয়ে পড়েন ছোট্ট এই পরীটি। বিশ্বে ভালো লোকের তুলনায় খারাপ লোক যে বেশি আছে তার প্রমাণ পাওয়া যায় কিছুদিনের মধ্যেই ছোট্ট শিশুটির ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়। যদিও কিছুদিনের মধ্যেই তার মা আরেকটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট খোলেন।

ছোট থেকেই মায়ের সাপোর্টে বিশ্বের সামনে শিশু মডেলে পরিণত হয় অনাহিতা। করোনা ভাইরাসের প্রকোপ চলাকালীন আক্রান্ত হয়ে পড়েন এই ছোট্ট শিশুটি। গোটা বিশ্ব রীতিমতো চিন্তিত হয়ে পড়েন শিশুটিকে নিয়ে। যদিও তার মা অবশেষে জানান এই খবরটি সম্পূর্ণভাবে মিথ্যা।

আগেকার দিনে রীতি ছিল কন্যাসন্তান মহাপাপ বা কন্যা সন্তান পত্রিকা পিতা-মাতার গলার গলগ্রহ তাদের কাছে এই ছোট্ট শিশুটি ভিডিও এক অন্য বার্তা পৌঁছে দেবে। মেয়েরা চাইলে যে কত কিছুই না করতে পারে তার প্রমান পাওয়া যায় হাতেনাতে। এখানে অবশ্য এই ছোট্ট শিশুটি সৌন্দর্যের জন্য সকলের কাছে খুবই পছন্দের একজন হয়ে উঠেছে। মিষ্টি হাসির সাথে অভাবনীয় মুখ সকলের কাছে এক অনন্য উদাহরণ হয়ে উঠেছে, আমাদের সকলের প্রিয় ছোট্ট অনাহিতা।