ভারত থেকে 500 টি চীনা পণ্য বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত, দেখে নিন প্রকাশিত তালিকা..

সম্প্রতি বেশ কয়েকদিন ধরেই লাদাখ সীমান্তে ভারত- চীনের মধ্যে সংঘর্ষ হচ্ছে। ভারত এবং চীন সেনাদের সংঘর্ষে এদিন ভারতের 20 জন জাওয়ান শহীদ হন। তবে এদিন সংঘর্ষে ছেড়ে কথা বলেনি ভারতীয় সেনারা। তারাও পাল্টা জবাব দিয়েছে চীনের সেনাদের। এই ঘটনার পর থেকেই সারা দেশ জুড়ে চীনা পণ্য বয়কট করা নিয়ে ঝড় উঠেছে। এছাড়াও করোনা ভাইরাস ছড়ানোর কারণে সারা বিশ্ব চীনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। চীনকে শায়েস্তা করার জন্য তারা উঠে পড়ে লেগেছে। ভারতের ব্যবসায়িক – The Confederation of India Traders চীনা পণ্য বয়কট করার ডাক দিয়েছে।

এই সংগঠন মোট 500 টি চীনা পণ্যের একটি লিস্ট তৈরি করেছে। লাদাখে ভারতীয় সেনার প্রতি যে হামলা হয়েছে তার কড়া জবাব দিতেই এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই সংস্থার দাবি জানিয়েছে, চীন যখনই সুযোগ পাচ্ছে তখনই তারা নিজের রুপ দেখিয়ে দিচ্ছে। কিন্তু বারবার ভারত তা মানবে না। ভারত এবার এর তীব্র প্রতিবাদ জানাবে। তাই চীনা সামগ্রী হাটাও দেশ বাঁচাও শ্লোগানের পথে নেমেছে এই সংস্থা। এই সংস্থা 500 বেশি একটি প্রোডাক্ট এর কর্মসূচি তৈরি করেছে যার থেকে প্রায় 3000 পণ্য তৈরি হয়ে ভারতের বাজারে আসে। ধীরে ধীরে 2021 সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে এই কর্মসূচি সম্পূর্ণ হবে।

আপনাদের জানিয়ে দিই চীন থেকে প্রায় এক লক্ষ কোটি টাকার পণ্য সামগ্রী ভারতে আসে। এবার থেকে চীনা পণ্য বয়কট করে এই কাজ পুরোপুরি বন্ধ করে দিতে হবে এবং চীনকে অর্থনৈতিক দিক থেকে দুর্বল করতে হবে। এই তালিকায় রোজগার ব্যবহৃত বিভিন্ন জিনিসের নাম রয়েছে যেমন, বিভিন্ন ধরনের খেলনা, টেক্সটাইল, ফুটওয়ার, রান্নাঘরে ব্যবহৃত বিভিন্ন জিনিসপত্র, গার্মেন্টস, ঘড়ি, গিফট, ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক্স জিনিস, গহনা, হেলথ প্রোডাক্ট, মোটর গাড়ির বিভিন্ন যন্ত্রাংশ সহ আরো অনেক জিনিস রয়েছে যেগুলি চীন থেকে আমাদের দেশে আমদানি করা হয়।

বর্তমানে চীন থেকে আমাদের দেশে প্রায় 5.30 লক্ষ কোটি টাকার পণ্য আমদানি করা হয় প্রত্যেক বছর।
ভারতকে যাতে চীন থেকে কোন পণ্য আমদানি না করতে হয় সেই বিষয়টি লক্ষ্য রাখা হচ্ছে। তাই যে সমস্ত পণ্যগুলি বাতিলের তালিকায় রয়েছে তার সমস্ত চীনা পণ্য। তবে যে সমস্ত পণ্যগুলি টেকনোলজির দিক থেকে অনেকটা এগিয়ে সেই সমস্ত পণ্যগুলি কে এখনই বাতিল করা হবে না। পরবর্তীকালে ভারত যখন সেই পণ্যগুলি অন্য প্রতিবেশী রাষ্ট্রের থেকে আমদানি করবে তার পরেই টেকনোলজির দিক থেকে উন্নত চীনা পণ্যগুলি কে বাতিল করা হবে।