রাজ্যে ঢুকে পড়লো করোনার কোপ, সোমবার থেকে পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত স্কুল কলেজ বন্ধের নির্দেশ! জারি নির্দেশিকা…

এখন গোটা বিশ্বে এখন একটাই আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস। এই ভাইরাসের প্রকোপ থেকে গোটা বিশ্ব কীভাবে বেরিয়ে আসতে পারে সে নিয়ে চলছে একাধিক গবেষণা। তবে এবার অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও করোনা ভাইরাস এর প্রভাব শুরু হয়ে গেছে। এই ভাইরাসের জেরে আক্রান্তের সংখ্যা 1 লাখ 83 হাজার 818 জন এবং সারা বিশ্বে এই ভাইরাসের দরুন মৃত্যু হয়েছে 5 হাজারেরও বেশি মানুষের।
প্রসঙ্গত, ভারতে নতুন করে আরও 2 জনের দেহে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়েছে।

মহারাষ্ট্রের 2 জনের দেহে মারণ ভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে। এই মুহূর্তে ভারতে মোট এই ভাইরাসের দরুন আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে 83 জন।আর এই করোনায় আক্রান্ত হয়ে কর্নাটক ও দিল্লিতে 2 জনের মৃত্যুও হয়েছে। এবার পশ্চিমবঙ্গ ঝাঁপিয়ে পড়লো করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক, এবার করোনার কোপ পড়েছে শিক্ষার ক্ষেত্রেও। রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ইতিমধ্যে নির্দেশ জারি করে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের সমস্ত স্কুল-কলেজ আগামী সোমবার দিন থেকে বন্ধের। আজ শনিবার দিন এই বিজ্ঞপ্তিটি জারি করা হয়েছে নবান্নের তরফ থেকে।

জারি করা এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে আগামী 31 মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের সমস্ত স্কুল- কলেজ এবং মাদ্রাসাসহ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকিবে এই কোরনা ভাইরাসের জোরে। তবে এক্ষেত্রে রাজ্যের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সূচী অনুযায়ীই চলবে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। এর আগে খড়গপুর আইটিআই তরফ থেকে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল এবং আগামী 31 মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলিকে। আর শুধু ক্লাসের ক্ষেত্রেই নয়, কোন প্রকার সেমিনার করা যাবে না এই দিনগুলোতে তাই আজ সকাল থেকে ক্যাম্পাস ছাড়তে শুরু করেছেন ছাত্রছাত্রীরা।

এরই পাশাপাশি আজ বিশ্বভারতী বিদ্যালয় তরফ থেকে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে এবং বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর এই করোনা আতঙ্কে সিল করা হল বাংলাদেশ সীমান্ত। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশিকা মেনে 15ই মার্চ থেকে 15 ই এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করে দেওয়া হল মৈত্রী এবং বন্ধন এক্সপ্রেসের যাত্রা। একইসঙ্গে আজ থেকে কলকাতা স্টেশনে চালু হয়েছে থার্মাল স্ক্রিনিং।