ভারতে থাকা বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ফেরত নেবে হাসিনার সরকার, জানিয়ে দিল বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রক…

যখন থেকে কেন্দ্র সরকার নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ঘোষণা করছেন তখন থেকেই দেশজুড়ে শুরু হয়েছে আন্দোলন-বিক্ষোভের,এমনকি রাজ্যেও বিভিন্ন জায়গায় দেখা দিয়েছে একাধিক বিক্ষোভ।
বর্তমানে সারা দেশজুড়ে এখন একটি কথা CAA এবং NRC। CAA এবং NRC নিয়ে বিক্ষোভে উত্তাল সারাদেশ। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল যেদিন থেকে আইনে পরিণত হয়েছে সেই দিন থেকে লোকের মধ্যে নানান ধরনের ভয় কাজ করছে।

তবে এইসব বিক্ষোভ-প্রতিবাদ এর মধ্যে বেরিয়ে এল এক স্বস্তির খবর যেখানে বাংলাদেশের সরকার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে ভারতে বসবাসকারী অস্থায়ী অনুপ্রবেশ কারীদের ফেরত নিতে রাজি তারা। একথা বাংলাদেশের বিদেশ মন্ত্রী একে আবদুল মোমেন বলেন। তিনি জানান ভারতে কোন বাংলাদেশী নাগরিক থাকলে তাদের ফেরত নেওয়া হবে। তবে যেমনটা আমরা জানি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ যবে থেকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের কথা তুলে ধরেন তবে থেকে এই আইন কে ঘিরে উত্তাল রয়েছে দেশের বিভিন্ন জায়গায়।

শুধু তাই নয় এই আইনকে ঘিরে এখন একাধিক প্রশ্ন উঠতে শুরু করছে যার মধ্যে একটি প্রশ্ন বেশিরভাগ উঠে আসছে সেটি হল অনুপ্রবেশকারীদের শনাক্ত করা গেল কীভাবে ফেরত পাঠাবে ভারত সরকার তা নিয়ে।কারণ এর আগে ঢাকার তরফ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল ভারতে কোন অবৈধভাবে বসবাসকারী বাংলাদেশি নাগরিক নেই। তবে এখন এই বিষয়ে আলাদা বক্তব্য বেরিয়ে এলো যেখানে বাংলাদেশের বিদেশ মন্ত্রী বিজিবির একটি অনুষ্ঠানে জানান যে নয়াদিল্লি তরফ থেকে আশ্বস্ত করা হয়েছে জোর করে কাউকে বাংলাদেশে পাঠানো হবে না।

যদি কোন বাংলাদেশী অবৈধভাবে বসবাস করে থাকেন তাহলে তাকে যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের গ্রহণ করা হবে।এই বিষয়ে গত মঙ্গলবার দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সর্ব ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানান, গোটা দেশের নাগরিক পঞ্জি নিয়ে এখনো পর্যন্ত কোনো আলোচনা বা বিতর্ক হয়নি। অন্যদিকে এই বিষয়ে গত রবিবার দিন নরেন্দ্র মোদি দিল্লির এক সভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে বলেন ভারতের 130 কোটি দেশবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই, যে 2014 সালে আমার সরকার আসার পর থেকে এনআরসি নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি।

শুধু তাই নয় তার সাথে তিনি আরও একটি কথা স্পষ্ট করে দিয়ে বলেন সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনেই অসমে করা হয়েছে এনআরসি। তার সাথে তিনি আরো বলেন অনেক জায়গায় এরকম অনেক অপপ্রচার করা হচ্ছে যেখানে মিথ্যা রটানো হচ্ছে অনেক নেতা- মন্ত্রী টিভি চ্যানেলে দাবি করছেন গোটা দেশে এনআরসি করতে বিশাল খরচ দিতে হবে কিন্তু যে জিনিসটির নিয়ে কোনো আলোচনা নেই তার জন্য কেন এত মাথা খারাপ কেনো করছেন তারা। অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য থেকে এটা স্পষ্ট হয়ে গেছে যে দেশজুড়ে যে এনআরসি করার পরিকল্পনার খবর চারিদিকে শোনা যাচ্ছিল সেটা শুধুমাত্র গুজব ছাড়া আর কিছু নয়।

Related Articles

Back to top button