ভারতের ওপরেও কী আঘাত হানতে পারে তালিবান? তালিবান নিয়ে কড়া বার্তা চিফঅফ ডিফেন্স বিপিন রাওয়াত এর

কোন বদল নেই,তালিবান একই আছে। জানালেন ভারতের চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত।তিনি জানালেন, তালিবানের এই দখলদারি প্রত্যাশিতই ছিল, তবে এত দ্রুত তারা ঢুকে পড়বে এ বিষয়ে কোনো রকম আশঙ্কা করেনি ভারত।

২০ বছর পর আফগানিস্তানে ফিরেছে তালিবানি শাসন। আর সেই আতঙ্কেই আফগানরা দেশ ছেড়ে পালিয়ে যেতে চাইছেন। এরই প্রসঙ্গে তিন সেনার প্রধান বিপিন রাওয়াত জানান, আফগানিস্তানের বাইরে, তথা ভারতের মাটিতে যদি কোন জঙ্গি কার্যকলাপ ঘটানোর চেষ্টা করা হয়, তাহলে করা হাতে তা দমন করবে ভারত। তালিবান ২০ বছর আগে যেমন ছিল, আজও তেমনি আছে। জানান বিপিন রাওয়াত।

জেনারেল বিপিন রাওয়াত ভারত প্রশান্ত মহাসাগরের সমস্যাকে আলাদা আলাদা বলে আখ্যা দেন।তিনি বলেন,’ দুটি ক্ষেত্র ই এই অঞ্চলের নিরাপত্তার জন্য একটি চ্যালেঞ্জ উপস্থাপনা করেছে, কিন্তু এগুলি বিভিন্ন পৃষ্ঠে রয়েছে। এ দুটি সমান্তরাল রেখা যা খুবই কম দেখা যায়’।

জেনারেল বিপিন রাওয়াত বলেন,’যখনই কোন সমস্যা হয়,তখন আমাদের চিন্তা বেড়ে যায়। শুধু আমাদের উত্তরে থাকা প্রতিবেশীই নয়, পশ্চিমে ধাকা প্রতিবেশীদের কাছে পরমাণু হাতিয়ার রয়েছে। আমরা এমন দুই প্রতিবেশী দিয়ে ঘিরে রয়েছি, যাদের কাছে কূটনৈতিক হাতিয়ার রয়েছে হাতিয়ার রয়েছে’।

তিনি আরো বলেন যে,’ এর জন্য আমরা লাগাতার আমাদের নীতি উন্নত করছি।আমরা আমাদের প্রতিবেশীদের অ্যাজেন্ডা বোঝার চেষ্টা করছি।আর সেই হিসাবেই আমরা আমাদের ক্ষমতা বিকশিত করছি। আমরা অনেকটাই মজবুত। যে কোন শত্রুকে আমাদের সেনার মাধ্যমে কড়া জবাব দিতে সক্ষম’।

তবে বর্তমান এ পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে নয়াদিল্লি আগবাড়িয়ে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তবে তলে তলে তালেবানদের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।আর এরই সাথে সাথে সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, ভারতীয়দের ওপর হামলার আশঙ্কা থাকায় তাদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।