করোনা যোদ্ধাদের কুর্নিশ জানাতে আগামী 1 জুলাই রাজ্যে সাধারণ ছুটির ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতার…

করোনা মহামারীর কারনে মহাসংকটে আমাদের দেশ। কিন্তু এই মহাসংকটের সময় যারা দিন-রাত এক করে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসা করে যাচ্ছেন তাদের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন প্রত্যেকে। কয়েকদিন আগেই ভারতীয় সেনা তরফ থেকে করোনা যোদ্ধাদের সম্মান জানানো হয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সকলেই তাদের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন। কারণ তারা নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত।

সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ রাজ্যে করোনা যোদ্ধাদের কুর্নিশ জানানোর জন্য 1 লা জুলাই রাজ্যজুড়ে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করলেন। আজ বিকেলে সাংবাদিক বৈঠকে নবান্নে একথা ঘোষণা করেন তিনি। তাদের সকলকেই সম্মান জানাতে এই ছুটি ঘোষণা করেছেন তিনি।আপনাদের মনে করে দিই আগামী 1 জুলাই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা চিকিৎসক ডক্টর বিধানচন্দ্র রায়ের মৃত্যু দিন এবং জন্মদিন দুটোই। সুতরাং করোনা যোদ্ধাদের সম্মান জানানোর জন্য এই বিশেষ দিনটিকে বেছে নিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।


এদিন রাজ্য সরকারের সমস্ত অফিস, দফতর ছুটি থাকবে। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে প্রথমেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাদের কথা বলেন যারা এই কঠিন পরিস্থিতিতে একেবারে প্রথম সারিতে থেকে লড়াই করছেন। তিনি বলেছেন, ‘ যারা সরাসরি চিকিৎসা পরিষেবার সাথে যুক্ত রয়েছে তাদেরকে সাপোর্ট করছেন তাদের পরিবার। তাই এদের সকলকে আমার তরফ থেকে শ্রদ্ধা এবং সম্মান রইল। পরিবারের সম্পূর্ণ সাপোর্ট রয়েছে বলে তারা এত ভালোভাবে কাজ করতে পারছেন। সকলের জন্য আমরা এটা ঠিক করেছি যে আগামী 1 জুলাই ছুটি থাকবে।

এদিন ছুটির মাধ্যমে তাদের এতদিন এর পরিশ্রমকে আমরা সম্মান জানাবো।’ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেছেন যে, 1 জুলাই যেন জাতীয় ছুটি ঘোষণা করা হয়। কারণ এর ফলে করোনা যোদ্ধারা আরও উৎসাহ পাবেন কাজ করার। তাই কেন্দ্রের কাছে আমার এই আবেদন যে এই দিনটিকে যেন জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণা করা হয়। কারণ এদিন জাতীয় ছুটি ঘোষণা করলে অন্যান্য রাজ্যের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরাও উৎসাহ পাবেন এবং তাদের প্রতি সম্মান জানানো হবে।