গিয়েছিল আনন্দ উপভোগ করতে, অবশেষে নিজের মুরগির হাতেই খুন মালিক

তেলেঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক, ওড়িশায় আইনতভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মুরগী লড়াই। অনেক ব্যক্তি মুরগি পোষেন সেই মুরগিকে দিয়ে লড়াই করানোর জন্যই। তাই মুরগি লড়াইয়ের জন্য ছোট থেকেই মুরগিটিকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।কিন্তু আইনত ভাবে অনেক দেশেই এই মুরগি লড়াই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মুরগি লড়াই অবৈধ হওয়া সত্ত্বেও নিজের প্রাণের মায়া না করে নিজের মুরগিকে নিয়ে মাতলেন এক মুরগির মালিক মুরগি লড়াইয়ে। এই মুরগি লড়াইয়ের জন্য মুরগির হাতে শেষে খুন হতে হল মালিককে।

 

ঘটনাটি ঘটেছে তেলেঙ্গানায়। তেলেঙ্গানায় এমনিতেই বহুদিন থেকে মুরগি লড়াই আইনতভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বেআইনিভাবে একটি মালিক মুরগি লড়াইয়ে যোগ দিয়েছিলেন। আর ওই লড়াইয়ে মুরগির পায়ে বাঁধা থাকা ছুরির আঘাতে ক্ষতবিক্ষত হয়ে মৃত্যুবরণ করলেন ওই মালিকটি।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, লড়াইয়ের মাঠে মুরগিটিকে নামানো হয়েছিল পায়ে একটি ছুঁরি বাঁধা অবস্থায়। সেই মুরগিটি লড়াইয়ের ময়দান থেকে পালানোর চেষ্টা করে। তখন মালিকটি মুরগিকে আটকাতে যায়। মুরগিকে আটকাতে গিয়ে মুরগির পায়ে বাঁধা ওই ছুরির আঘাতে মালিকটি ক্ষতবিক্ষত হয়।

রক্তাক্ত অবস্থায় ওই মালিকে সঙ্গে সঙ্গে তেলেঙ্গানা করিমনগর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর ডাক্তাররা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ছুরির আঘাতে ক্ষতবিক্ষত হওয়ার ফলে অত্যাধিক রক্তক্ষরণ হয় ওই ব্যক্তির। আর এই রক্তক্ষরণের জন্যই ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক্তাররা। এরপর ওই অবৈধ মুরগি লড়াইয়ের সাথে যুক্ত থাকা আরও ১৫ জন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে এবং খুনি মুরগিটিকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।