Categories
দেশ নতুন খবর বিশেষ

কেন্দ্রের তরফ থেকে Unlock-4.0 কে নিয়ে জারি করা হল একাধিক গাইডলাইন, জেনে নিন আগামী মাস থেকে কী কী খোলা থাকছে…

ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে লকডাউন-4 এর জন্য নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে কেন্দ্রের তরফ থেকে বিশেষ কিছু শর্তসাপেক্ষে আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে মেট্রো চালানোর অনুমোদন প্রদান করা হয়েছে। এর পাশাপাশি আগামী একুশে সেপ্টেম্বর থেকে যেকোন ধরনের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে 100 জন অংশগ্রহণ করতে পারবেন এমনটাও জানানো হয়েছে। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল কেন্দ্রীয় সরকারের মেট্রো পরিচালনা করার সিদ্ধান্ত নিয়ে খুশি প্রকাশ করেছেন।

 

এই নিয়ে তিনি একটি টুইট ও করেন যেখানে তিনি লিখেন আমি খুব খুশি যে মেট্রোকে পর্যায়ক্রমে 7 September থেকে এর কার্যক্রম শুরু করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আনলক -4 এর নির্দেশিকা প্রকাশের পরে, দিল্লি মেট্রো ঘোষণা করেছে যে তার পরিষেবাগুলি আগামী 7 September থেকে পর্যায়ক্রমে শুরু হবে।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে জারি করা এই নির্দেশিকাতে বলা হয়েছে আগামী 21 শে সেপ্টেম্বরে পর থেকে যেকোনো ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক, বিনোদন ও খেলাধুলা ইত্যাদির অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হবে তবে এক্ষেত্রে এক ছাদের নিচে সর্বোচ্চ 100 জন উপস্থিত থাকতে পারবেন।

তবে এই জাতীয় অনুষ্ঠানগুলিতে অনিবার্য থাকবে ফেস মাস্ক, সামাজিক দূরত্ব, থার্মাল স্ক্যানিং, স্যানিটাইজার এবং কোভিড -19 এর নিয়ম অনুসরণ করবে। সিনেমা হল, সুইমিং পুল, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট (কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে বাদে) এখনও সব বন্ধ থাকবে। একই সাথে, কনটেইনমেন্ট জোনের বাইরের নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা পরিবারের সম্মতিতে শিক্ষকদের সাথে দেখা করতে স্কুলে যেতে পারবে। আপাতত সরকারের তরফ থেকে আগামী 30 শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এক্ষেত্রে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত রাজ্যগুলির সাথে ব্যাপক আলোচনা করার পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে স্কুল, কলেজ, কোচিং ইনস্টিটিউট 30 শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। 21শে সেপ্টেম্বর 2020 থেকে ওপেন এয়ার থিয়েটারগুলি খোলার অনুমতি দেওয়া হবে। তবে এই যে ক্রিয়াকলাপগুলির কথা বলা হয়েছে সেগুলি কিন্তু কনটেইনমেন্ট জোনের বাইরে অনুমোদিত…

এক্ষেত্রে রাজ্য/কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে 50% অবধি শিক্ষক এবং নন-টিচিং স্টাফকে অনলাইনের শিক্ষকতা এবং এই সম্পর্কিত কাজের জন্য স্কুলে ডাকা যেতে পারে।

এক্ষেত্রে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের তাদের স্বেচ্ছাসেবীর ভিত্তিতে স্কুলে যোগদানের অনুমতি দেওয়া যেতে পারে, তাদের শিক্ষকদের কাছ থেকে গাইডেন্স পাওয়ার জন্য। তবে এই পুরো বিষয়টি তাদের বাবা-মা অথবা অভিভাবকদের লিখিত সম্মতির পরেই ঘটবে।