বাজেট – করোনা আবহে ‘বাড়ি থেকে কর্মরত’দের জন্য ট্যাক্সে থাকছে বিশেষ ছাড়

মহামারীর কবলে অর্থনীতির অবস্থা খারাপ৷ চলতি অর্থবর্ষে কীভাবে সবকিছু সামাল দেবে কেন্দ্র সরকার তাই নিয়ে চলছে জোর জল্পনা। অর্থনীতির হাল কি ফিরবে?এই বিষয় সংশয় প্রকাশ করছেন অর্থনীতি মহলের একাংশ। যদিও আর্থিক হাল ফেরানোর ব্যাপারে  আশ্বস্ত করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।

২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেট পেশ করা হবে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি৷ বাজেট পেশ করবেন  অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন৷ আর্থিক বাজেটের অপেক্ষায় এখন গোটা দেশ৷ নির্মলা সীতারমন   জানিয়েছেন, এ বছর বাজেটে প্রচুর বদল হতে চলেছে৷ দুর্বল  অর্থনীতিকে  চাঙ্গা করতে ট্যাক্স আদায়ের ক্ষেত্রে থাকবে বেশ কিছু পরিবর্তন। তাই ২০২১-এর বাজেট হতে চলেছে তাৎপর্যপূর্ণ।

২০২০ তে  করোনা মহামারীতে বদলে গিয়েছে  মানুষের জীবনযাত্রা।  সেইসঙ্গে  দেশের অর্থনীতিও অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে৷ লকডাউনের কারণে বহু মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে৷ আবার  অনেকের চাকরি থাকলেও বেতন কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। বহু বেসরকারি সংস্থা কর্মীদের বেতনে কাটছাঁট করেছে । তাই এই বছর বাজেট অধিবেশনে  ট্যাক্স ছাড়ের উপর বিশেষ ভাবে নজর দেওয়া হচ্ছে। দেশের প্রতিটি নাগরিকের কথা মাথায় রেখে ২০২১-এর বাজেটে ট্যাক্স ছাড় নিয়ে বড়সড় ঘোষণা করতে পারেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।

করোনা আতঙ্ক কিছুটা কমলেও এখনো সব সংস্থা অফিস চালু করে নি৷ তাই বাড়ি থেকে বসে অনেক কর্মচারীদের কাজ করতে হচ্ছে। তাই কোম্পানির গাড়ি ব্যবহার করা বা ফ্রি-তে খাবার পাওয়া এই বিষয় গুলি বন্ধ। এক্ষেত্রে কর্মীদের অনুপ্রাণিত করতে এবং কর্মীরা যাতে সুষ্ঠভাবে কাজ করেন, তার জন্য মেডিক্যাল বীমা, কর্মীদের অন্যান্য খরচ ট্যাক্সের আওতায় অন্তর্ভুক্ত হতে পারে৷ আগামী বাজেটে বেতনভুক্ত কর্মচারীদের জন্য একটি বিশেষ প্যাকেজ থাকবে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

বিশ্বের একাধিক প্রান্তে পৌঁছে গেল ভারতের করোনা ভ্যাকসিন, তালিকা থেকে বাদ পাকিস্তানের নাম

সরকারি কর্মচারীরা বাড়িতে বসে কাজ করছেন৷ এর জন্য সরকারকে গতবছর ক্ষতিপূরণ দিতে হয়েছিল। বাড়িতে বসে কাজ করার জন্য কম্পিউটার ইত্যাদির খরচা সরকারকে বহন করতে হয়েছিল। কিছু বেসরকারি সংস্থাও কর্মীদের জন্য এই খরচ দিয়েছিল৷ তাই বাড়তি এসব খরচ সামলাতে বিভিন্ন সংস্থা গুলির ট্যাক্স ছাড় দেওয়ার বিষয়টিকে নিয়ে ভাবা হতে পারে৷

বার্ষিক ১৫ লক্ষ টাকার উপর বেতনভুক্ত কর্মীদের জন্য ২০২০ অর্থবর্ষে  ট্যাক্স ডিজাইন করেছিল সরকার। তবে কোনও করদাতা নিজের ইচ্ছেমতন ট্যাক্স দিতে পারবেন।  পূর্বের ট্যাক্স অনুযায়ী সরকার বাড়ি ভাড়া বাবদ ভাতা, ছুটি কিংবা ভ্রমণ ভাতা, স্ট্যান্ডার্ড ছাড় এবং ৮০সি সহ প্রায় ৭০ টি বিদ্যমান ছাড় বাতিল করেছিল সরকার৷