এবার বাজেটে রাহুল পেতে চলেছে বড় ঝটকা : মোদী সরকার গরীবদের একাউন্টে পাঠাবে টাকা !

যেমন কি আপনারা সকলেই জানেন লোকসভা নির্বাচনে আর বেশি সময় বাকি নেই হাতে গোনা মাত্র পড়ে আছে দু থেকে তিনটি মাস আর তাই সকল কার্যকর্তা তাদের নিজ নিজ দলের প্রচার কার্যে লেগে পড়েছে। আর এরই মধ্যে খবর উঠে আসছে যেখানে রাহুল গান্ধী প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলছেন ক্ষমতায় আসলে দেশের গরিবদের মাসে নিশ্চিত একটি আয় এর ব্যবস্থা করা হবে। তবে তার এই প্রতিশ্রুতি হয়তো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিই বাস্তবায়িত করে দিতে পারেন তারই আগে। কিছুদিন আগে শুনতে পাওয়া গিয়েছিল যেখানে গরিবদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে  মাসের শেষে টাকা পাঠানো নিয়ে আলোচনা করছিল কেন্দ্র সরকার।

আর সেই উপহার দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অন্তর্বর্তী বাজেটেই হতে পারে সেই ঘোষণা বলে সূত্রের খবর। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো ভারতীয় ইউনিভার্সাল বেসিক ইনকাম প্রকল্প অর্থাৎ ইউবিআই চালু করার ভাবনা চিন্তা করছেন মোদি সরকার। আর এই নিয়ে কয়েকটি বৈঠক ও করা হয়েছে এর আগে। যেমন আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন দেশের কয়েকটি রাজ্যের কৃষকদের অ্যাকাউন্টে মাসের শেষে ফেলা হয় একটি অংকের টাকা। তবে এবার এই প্রকল্পটিতে দেশজুড়ে গরিবদের অ্যাকাউন্টে মাসের শেষে দেওয়া হবে টাকা বলে নির্দিষ্ট করা হয়েছে যাতে তারা তাদের খরচ চালাতে পারে। তবে এ ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট আয়ের নিচে ব্যক্তি বা দারিদ্র সীমার নিচে থাকা ব্যক্তিদের এই প্রকল্পের আওতায় আনার চিন্তাভাবনা করছে কেন্দ্রীয় সরকার এই নিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে প্রস্তাবও চেয়ে পাঠানো হয়েছিল।সূত্র অনুসারে আরো জানতে পারা গেছে, দেশের 20 কোটি মানুষ হতে পারেন এই প্রকল্পের আওতায় যাদের কোনো শর্ত ছাড়ায় মাসের শেষে একাউন্টে ঢুকে যাবে টাকা।

আপনাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো ভাবছেন ইউনিভার্সেল বেসিক ইনকাম প্রকল্প টা কী? তো আপনাদের সুবিধার্থে বলে দি এটি এক প্রকার প্রকল্প যেখানে মাসের শেষে কোন শর্ত ছাড়াই একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে অর্থ দেওয়া হয় দেশের নাগরিকদের ব্যাঙ্ক খাতায়। 1967 সালে এই প্রকল্পের পরিকল্পনা করেছিলেন মাটির লুথার কিং জুনিয়র। এছাড়া প্রাশ্চাত্যের অনেক দেশেই বেকার ভাতা প্রকল্পের চল রয়েছে। ইতিমধ্যে মধ্যপ্রদেশের 2010 থেকে 2016 সাল পর্যন্ত চলেছে পাইলট প্রকল্প। এই প্রকল্পে ও সাধারণ মানুষের ব্যাংক একাউন্টে পাঠানো হয় টাকা। পরবর্তীকালে সমীক্ষা করে দেখতে পাওয়া যায় এর ফলে তাদের জীবনযাত্রায় আমূল পরিবর্তন এসেছে।

এছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে চলে এই প্রকল্প সাইপ্রাস, ফ্রান্স, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক প্রদেশ এবং ব্রাজিল,কানাডা, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড,জার্মানি, লেদারল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড ও ব্রিটেনেও এই ইউবিআই প্রকল্প চালু রয়েছে। তবে যেমন কি আপনারা সকলেই জানেন ভারতের মতো দেশে এই প্রকল্প চালু করতে গেলে প্রয়োজন হবে বিশাল অর্থের, চাপ পড়বে রাজকোষে। তাই এত বিপুল পরিমাণে অর্থ কোথা থেকে আসবে সেই নিয়ে একটা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। এই বিষয়ে আপনাদের কি হয় তা আমাদের অবশ্যই জানান। আরো এরকম নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের TheIndiaNews এ।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close