BreakingNews: আগামী রবিবার দিন আবারও জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী..

আগামী 21 তারিখ অর্থাৎ রবিবার ফের জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জানা গেছে সকালেই দেশবাসীর মুখোমুখি হবেন তিনি। এর আগে করোনা মোকাবিলায় অনেকবার দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আপনাদের জানিয়ে দিই, আগামী 21 তারিখ অর্থাৎ রবিবার আন্তর্জাতিক যোগ দিবস। অনেকে মনে করছেন সেই উদ্দেশ্যেই নাকি তিনি ভাষণ দেবেন জাতির উদ্দেশ্যে।এদিকে ভারতে হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কোনভাবেই যেন করোনা সংক্রমণ আটকানো যাচ্ছে না।

অনেকে মনে করছেন এই সময় কীভাবে যোগ ব্যায়াম করে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করা যায় সেই সম্পর্কে কিছু বলবেন আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আবার অনেকেই মনে করছেন এদিন দেশবাসীর সামনে কিছু যোগা হয়তো করেও দেখাতে পারেন প্রধানমন্ত্রী।
আপনাদের মনে করিয়ে দিই, এর আগের বছর যোগ দিবসের দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সবার সাথে যোগ করতে দেখেছে ভারতবাসী। শুধু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নয় বিজেপির অনেক তাবড় তাবড় নেতারাও এদিন আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে অংশগ্রহণ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাথে।

এ বছরও যোগ দিবস পালন করবে সারা দেশবাসী।যেহেতু এই বছরের পরিস্থিতি একটু অন্যরকম তাই এবারের আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালন হবে একটু অন্য পদ্ধতিতে। এবারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালন করবেন ভার্চুয়াল ভাবেই। অর্থাৎ ক্যামেরার এপারে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আর ওপারে থাকবে সমগ্র দেশবাসী।অপরদিকে আবার করোনা ভাইরাসের প্রভাবে দেশের পরিস্থিতি ধীরে ধীরে আরও তলানীতে ঠেকেছে তা আমরা সবাই ভালোভাবে বুঝতে পারছি। অর্থনৈতিক দিক থেকে অনেকটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমাদের দেশ।

ঠিক এই পরিস্থিতিতে কীভাবে দেশকে চালানো যাবে সেই ভেবে চিন্তিত কেন্দ্রীয় সরকার। দফায় দফায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠক করছেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়াও সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে কয়েকবার বৈঠকও করেছেন তিনি। এছাড়াও বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে পরামর্শ নিচ্ছেন কীভাবে এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করা যায়। আরও খবর পাওয়া যাচ্ছে যে, রবিবার দিন জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিতে গিয়ে লকডাউন বাড়ানোর কথাও ঘোষণা করতে পারেন তিনি। এছাড়া আগামীকাল ভারত-চীন সংঘর্ষ 20 জন জাওয়ান শহীদ হন।

এর প্রতিবাদ নেওয়ার জন্য ফুঁসছে সারা ভারতবাসী। সীমান্তে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিও হয়েছে। তাই ঠিক এমন একটি পরিস্থিতিতে ভারতের পরিস্থিতি কেমন হবে সেই সম্পর্কেও কিছু জানাতে পারেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী। যদিও বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যে এই সম্পর্কে কিছু না বলার সম্ভাবনাই বেশি।