ব্রেকিং নিউজ: জম্মুকাশ্মীরে ওষুধ ও রেশন জমা করার নির্দেশ জারি!দেশের যুবকেরা থাকুন প্রস্তুত।

যেমন কি আপনারা সকলেই জানেন 14 ই ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরে পুলওয়ামায় জঙ্গি হানার ফলে শহীদ হয়েছেন 40 জনেরও বেশি সিআরপিএফ জওয়ান। আর সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানের প্রতি দেশজুড়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও পাকিস্তানের এই পদক্ষেপের পরে পাকিস্তানের তরফ থেকে ভারত মোস্ট ফেভারিট নেশন (MFN) পদটি কেড়ে নিয়েছে ভারত।এছাড়াও সিন্ধু নদীর জল যাতে পাকিস্তানের না পৌঁছায় তার জন্য বাঁধ নির্মাণ করার প্রক্রিয়া চালু করে দিয়েছে ইতিমধ্যে ভারত। এমনকি এই ঘটনার জেরে ভারতীয় সেনাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পুরো ছাড় দিয়ে দিয়েছেন। যেমন কি আপনারা অনেকেই জানেন আমেরিকার কাছে বিশ্বের গোপন থেকে গোপনতম তথ্য সবচেয়ে আগে পৌঁছে যায়।

 

 

 

সম্প্রতি কয়েকদিন আগেই এক সংবাদমাধ্যমের কাছে আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন বর্তমানে ভারত ও পাকিস্তানের সম্পর্ক খুবই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। ডোনাল্ড ট্রাম্প এটা উল্লেখ করেন সম্প্রতি ভারত একটা বড় কিছু করতে পারে বলে খবর আসছে। আর এই মুহূর্তে একটা বড় খভর সামনে এসেছে যেটা হলো জম্বু কাশ্মীরে রেশন ও ওষুধ জমা দেওয়ার নির্দেশ ইতিমধ্যে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।এর আগে ভারত NSA চীন ছাড়া বাকি পরমাণু সম্পন্ন দেশ গুলির সাথে যোগাযোগ করেছে এবং দেশ গুলির সাথে বার্তালাভ ও করেছে।আর এই বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তানের মধ্যে এখন একটা প্যানিক এর সৃষ্টি হয়েছে পাকিস্তান বুঝে গেছে ভারত সৈন্য কার্যকরী করা প্রস্তুত করে দিয়েছে।এমন কি পাক সরকার ভারত সরকারের গতিবিধি বুঝে নিজেদের সতর্ক করতে শুরু করে দিয়েছে। জম্বু-কাশ্মীরের সরকারের রেশন ও ওষুধ জমা করতে শুরু করে দিয়েছে এর থেকে স্পষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে বর্ডারে বড়োসড়ো লম্বা যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে চলেছে ভারত।

 

 

 

 

আর এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এই জন্যেই যে যুদ্ধের জওয়ানরা যদি ঘায়েল হয় তাহলে কোন প্রকার ওষুধ ঘাটতি না হয়, সেদিকে খেয়াল রেখেই করা হচ্ছে এসব বিষয়গুলি।একইসাথে খাবার ও জলের জন্যেও জোগানের ব্যাবস্থা রাখতে হবে। এখনো পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী এটাই অনুমান করা হচ্ছে যে এই যুদ্ধ একদিনের কোন প্রকার সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নয় বরং হতে পারে আসল যুদ্ধই। এই রেশন ও ওষুধের যোগান করা এটাই সংকেত দিচ্ছে যে ভারত POK পাকিস্থানের থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য লড়াই করতে পারে। আর এমন পরিস্থিতিতে দেশের সমস্থ যুবককে তৈরি থাকতে হবে। দেশ বলিদান চাইবে আর ভারত মায়ের সন্তানদের বলিদান দিয়ে পাকিস্থানের ইতিহাস ও ভূগোল বদলে দিতে হবে।

 

 

 

 

 

ভারত যে কোনো সময় একশন শুরু করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। দেশের সকল যুবকদের কাছে আমাদের অর্থাৎ দ্য ইন্ডিয়া নিউজ এর পক্ষ থেকে অনুরোধ তারা যেন মানসিক ও শারীরিক দিক থেকে এর জন্য প্রস্তুত এর থাকে। তবে এই যুদ্ধ যে 24 ঘন্টা 48 ঘণ্টার মধ্যে শুরু হয়ে যাবে তা নয়, কিন্তু সরকারে গতিবিধি দেখে দেশের উচিত পস্তুতি নেওয়া।