ব্রেকিং খবরঃ এবার PUBG সহ আরও 275 টি অ্যাপ ভারতে ব্যান করার পথে হাঁটতে চলেছে সরকার…

গালওয়ান উপত্যকাতে ভারত চীনের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধার পর থেকে ভারত সরকার চীনকে জব্দ করতে একাধিক পদ্ধতি অবলম্বন করছে। ভারতীয় সেনাদের ওপর এই ভাবে চীনা সৈনিকদের হামলার পর থেকে গোটা ভারত জুড়ে একাধিক চীনা পণ্য বয়কটের ডাক উঠেছে। তবে শুধু তাই নয় এবার ভারত সরকারও চীনকে জব্দ করতে একাধিক পদ্ধতি ব্যবহার করছে যেখানে এই মুহূর্তে একাধিক চীনা পণ্য ভারতে ইতিমধ্যে আমদানি করা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া ভারতের মধ্যে অতি প্রচলিত চীনা অ্যাপ যেমন Tik Tok, UC browser, Helo সহ আরো 59 টি মোবাইল অ্যাপ ইতিমধ্যে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এক্ষেত্রে ভারত সরকার চীনকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে শিক্ষা দিতে “ডিজিটাল স্ট্রাইক”(digital strike) শুরু করে দিয়েছে। তবে শুধু চীনকে শিক্ষা দেওয়ার জন্যই নয় বর্তমানে সরকারের তরফ থেকে যে অ্যাপ গুলি ব্যান করে দেওয়া হয়েছে সেগুলি দেশের সার্বভৌমত্ব, অখণ্ডতা ও দেশের সুরক্ষার জন্য অতি আবশ্যক ছিল। আর এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেখানে জানতে পারে সে ভারত সরকার PUBG সহ আরও 275 টি অ্যাপ ব্যান করার পথে হাঁটতে চলেছে। আর আপাতত সরকারের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে যে এই অ্যাপ গুলি দেশের সার্বভৌমত্ব ও নিরপত্তার রক্ষার ক্ষেত্রে ঝুঁকি হয়ে দাড়াচ্ছে কিনা।

সরকার এই বিষয়টি খতিয়ে দেখছে গ্রাহকদের তথ্য নিরাপত্তা দেওয়ার ক্ষেত্রে এই অ্যাপগুলি সক্ষম হচ্ছে কীনা আর প্রান্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা গেছে আবার যেসব কোম্পানি গুলির সার্ভার চীনে রয়েছে, সেসব অ্যাপগুলিকে বন্ধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। আর এই যে 275 টি অ্যাপের নাম উঠে আসছে তাদের মধ্যে রয়েছে PUBG এর নামও। যেমনটি আমরা জানি এই গেমটি একটি চীনের বিখ্যাত কোম্পানি টেনসেন্টের দ্বারা পরিচালিত করা হয়ে থাকে। আর সেই সঙ্গেই এই তালিকার মধ্যে রয়েছে আলিবাবা পরিচালিত aliexpress app টি, xiaomi এর দ্বারা তৈরি করা অ্যাপ Zili, তাছাড়া Resso app, ULike ছাড়াও আরও অনেক অ্যাপ।

অন্যদিকে কেন্দ্রের সূত্রের খবর, প্রথমে সরকার এই অ্যাপগুলিকে নিষিদ্ধ করতে পারে কিন্তু যদি পরীক্ষার পর দেখা যায় এই অ্যাপগুলির সমস্ত দিক সুরক্ষিত রয়েছে তার পরেই অ্যাপগুলি ব্যান করা নাও হতে পারে।আর এখনই চীনের এই অ্যাপ গুলিকে নিয়মিত পরীক্ষা করে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে এটাও জানার চেষ্টা চলছে এগুলির কোডিং কোথা থেকে করা হচ্ছে আর এদের মধ্যে বেশকিছু এমনও অ্যাপ রয়েছে যেগুলি দেশের জাতীয় সুরক্ষার জন্য বিপদজনক আর সেই সঙ্গে কিছু তথ্য শেয়ার ও গোপনীয়তার নিয়ম লংঘন করছে বলে জানতে পারে গেছে তবে এ গুলির নাম এখনো বেরিয়ে আসেনি।

তবে এই বিষয়ে সরকার নতুন রিপোর্ট তৈরি করছে এবার যদি ভারতে এই অ্যাপ গুলি চালাতে হয় তাহলে সেই স্বভাবগুলো মানতে হবে এই নতুন নিয়ম গুলি।যদি কোন এই নির্দিষ্ট নিয়মগুলি না মানে তাহলে সেই অ্যাপগুলিকে নিষিদ্ধ করা হবে ভারতে।