বড় খবর- পুরনো কার্ডেই মিলবে রেশন! তৈরি করতে হবেনা নতুন কার্ড?

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে গোটা দেশজুড়ে 21 দিনের লকডাউন পালন হচ্ছে। ফলে দেশে যারা খেটে খাওয়া মানুষ গরিব মানুষ তাদের পক্ষে এখন সংসার চালানো প্রায় অসম্ভব হয়ে উঠেছে। কারণ লকডাউন এর জেরে সমস্ত কাজকর্ম এখন আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে। তাই দেশের গরিব মানুষদের কথা ভেবে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে বিনামূল্যে তিন মাস প্রত্যেকটি বাড়ির প্রত্যেকটা ব্যক্তির জন্য 5 কিলো চাল ও এক কিলো ডাল দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে।

সরকারের এ ধরনের সিদ্ধান্তের ফলে প্রায় 80 কোটি মানুষ লাভবান হবে বলে জানানো হয়েছে। সরকারের এমন ঘোষণা করার পরই শুরু হয় জল্পনা। অনেকেই বলছিলেন যে যাদের পুরনো রেশন কার্ড রয়েছে তারা সরকারের দেওয়া বিনা মূল্যে চাল ডাল পাবেন না। কিন্তু সরকারের তরফ থেকে ঘোষণা করা হয় যাদের পুরনো রেশন কার্ড রয়েছে তাদেরও এই সুবিধা দেওয়া হবে। ফলে যাদের পুরনো রেশন কার্ড রয়েছে তাদের চিন্তার কোন কারণ নেই। দেশের যে কোন প্রান্তে পুরনো রেশন কার্ডে রেশন তুলতে পারবেন গরিব মানুষেরা।

কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, One Nation One Card Scheme লাগু হওয়ার পরও পুরনো রেশন কার্ড চলবে। এর আগে অনেকে গুজব ছড়িয়েছিল যে এই নতুন প্রকল্পের জন্য সরকারের তরফ থেকে নতুন কার্ড দেওয়া হতে পারে। কিন্তু এইসব কিছু নাই যার যেমন রেশন কার্ড ছিল সেই রেশন কার্ড দেখালেই মিলবে চাল-ডাল। এই যোজনা চালু হওয়ার পর রেশন কার্ড হোল্ডার দেশের যে কোন প্রান্তে রেশন দোকান থেকে রেশন নিতে পারবেন। এর জন্য তাদেরকে না পুরনো রেশন কার্ড জমা দিতে হবে না নতুন রেশন কার্ড বানাতে হবে, কিছুই করতে হবে না।

আপনি যদি অনলাইনে আবেদন করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে যেতে হবে খাদ্য বিভাগের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে। এরপর আপনার নিজের ভাষা সিলেক্ট করতে হবে। আপনার জেলা, গ্রাম পঞ্চায়েত সহ আরো একাধিক তথ্য জমা দিতে হবে ওখানে। এরপর আপনার কী ধরনের কার্ড আছে APL/BPL/Antodaya সিলেক্ট করতে হবে। এরপর আপনার পরিবারের সংক্রান্ত আরও তথ্য চাওয়া হতে পারে। এর পাশাপাশি আধার নম্বর, ভোটার আইডি এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর, মোবাইল নম্বর দিতে হবে।

সমস্ত কিছু হয়ে গেলে সাবমিট বাটনে ক্লিক করে তার একটা প্রিন্ট আউটের কপি আপনার কাছে রেখে দিন। রিপোর্ট অনুসারে দেশের সবচেয়ে বড় রাজ্য উত্তরপ্রদেশ ও বিহার। ফলে এই দুটি রাজ্যের পহেলা জুন থেকে এই যোজনা লাগু হতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এবং বাকি জায়গা তেও একই সময়ে চালু হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। শুধু তাই নয় এই যোজনা উত্তরাখন্ড, হিমাচল প্রদেশ, ওড়িশাতেও এই প্রকল্প চালু হবে বলে জানানো হয়েছে।

Related Articles

Back to top button