ব্রেকিং খবর ফেসবুকে স্ত্রীকে অশালীন মন্তব্য,থানায় ঢুকে যুবককে বেধড়ক মার জেলাশাসকের! দেখুন ভিডিও…

এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় চারিদিক তারই ছবি সমালোচনার সম্মুখীন হতে হল আলিপুর দুয়ারের জেলাশাসক নিখিল নির্মল , সারা জেলা জুড়ে এখন তিনি চর্চার বিষয় হয়ে রয়েছেন। তার করা এই কাণ্ডটি তাকে বিতর্কের সম্মুখীন করে তুলছে। স্ত্রীর ফেসবুকে প্রোফাইলে আপত্তিকর কমেন্ট করে এক যুবক তিনি সেই যুবককে ডেকে পাঠান থানায়। এবং তার ঠিক পরেই মুহূর্তে আইজি সৌম্যজিৎ রায়ের উপস্থিতিতেই যুবকটিকে বেধড়ক মারধর করেন নিখিল নির্মল ও তার স্ত্রী, এমনটাই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। আশ্চর্য বিষয় হলো যে, এই ভাইরাল ভিডিও তে জেলাশাসক কে বলতে শোনা যায়, ” আমার জেলায় আমার বিরুদ্ধে কেউ কথা বলবে না” ।

তারপরেই একের পর এক থাপ্পর মেরে যান যুবকটিকে, যুবকটি বারবার জেলাশাসকের পায়ে ধরে ক্ষমা চাইলেও , তিনি তার মারধর বন্ধ করেন নি । এবং এই ঘটনাটির পাশে দাঁড়িয়ে পুরো ঘটনাটি দেখেন তার স্ত্রী নন্দিনী কৃষণ । শুধু তাই নয়, মাঝেমধ্যে তার স্ত্রীও ওই যুবকটির গায়ে হাত তুলতে দেখা যায়। ওই ঘটনাটির মধ্যে তার স্ত্রীকে বলতে শোনা যায়, ” উঠে দ্বারা, কথাটা বলার সময় মনে ছিল না”। এবং তার স্ত্রী গাড়ি থেকে লাঠি আনারও নির্দেশ দেন। এবং সেই সময় থানার এক ব্যক্তি লাঠি ব্যাবহার করা যাবে না বলে মন্তব্য করেন।
তার মধ্যেই জেলাশাসক আবার রাগের মাথায় বলে ওঠেন, ” তোমাকে যদি আমি আধ ঘন্টায় থানায় ঢুকিয়ে দিতে পারি তাহলে , তোমার বাড়িতে ঢুকেও মেরে ফেলতে পারি “। এছাড়াও তিনি বলেন, ” এরকম কথা বলা তোর দ্বারা হবে না, তোকে এ কথা বলতে কে বলেছে বল “?

তার মাঝখানেই জেলাশাসকের স্ত্রী মোবাইল দেখিয়ে যুবকটিকে বলতে থাকেন,” তুই দেখ, লাইনটা তুই কি লিখেছিস পড় “, এবং শেষমেষ সেখান থেকে এক কনস্টেবল যুবকটিকে নিয়ে চলে যায় এবং তিনি বলেন, ” আপনি কমপ্লেন দিন তারপর ব্যবস্থা হবে” ।এই পুরো ঘটনাটির ভিডিও মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথে সারা জেলা জুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠে যায়, এবং নানা রকম প্রশ্নের বিতর্কে সম্মুখীন হতে হয় জেলাশাসককে। তিনি নিজে জেলাশাসক হয়ে দেশের আইনকে নিজের হাতে তুলে নিলেন কি করে ? এটাই এখন জনসাধারনের প্রশ্ন। নবান্ন জেলা শাসকের কাছে অখুশি হয়ে জেলা শাসক কে ১০ দিনের জন্য মুখ্য সচিব ছুটিতে পাঠিয়ে দেন। যদিও এই ঘটনা নিয়ে তারপর থেকে জেলাশাসক এর পক্ষ থেকে কোন রকম কথা উঠে আসেনি।
দেখে নিন মারধরের সেই ভিডিওটি….

 

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close