দেশনতুন খবর

ব্রেকিং খবর : সর্দার প্যাটেলের পর এবার নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসুর মূর্তি গড়তে পারে মোদী সরকার !

নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকে দেশে একের পর এক বড়ো পদক্ষেপ নিয়েই গেছেন। তবে শুধু দেশের জন্যে নয়,তার সাথে দেশের মহাপুরুষদের যোগ্য সন্মান দেওয়া ব্যবস্থা শুরু করেছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী।আপনারা হইতো কেউ কেউ জানেন না, কিছুদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী লালকেল্লা থেকে পতাকা উত্তোলন করার সময় সুভাষ চন্দ্র বোসকে দেশের প্ৰথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করেছিলেন। শুধু তাই নয় ডিসেম্বরে নরেন্দ্র মোদী আন্দামান নিকোবর গিয়ে সেখানে সুভাষ চন্দ্র বোসকে স্মরণ করে পতাকা উত্তোলন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন । এবার খবর উঠে আসছে যে প্রত্যেক দেশভক্তের মন মুগ্ধ করে তুলবেন তিনি। কিছুদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী গুজরাটে গিয়ে সর্দার প্যাটেলের মূর্তির উদ্বোধন করেছেন।


সর্দার প্যাটেলের পর নেতাজির মূর্তি তৈরির পরিকল্পনা হতে পারে বলে গোপন সূত্রে জানা যাচ্ছে। যারা এই বিষয়টিকে রাজনৈতিক গেম বলে দাবি করছেন তাদের জেনে রাখা দরকার নরেন্দ্র মোদী গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীনই বাংলার দুই ব্যাক্তির প্রতি খুবই টান ছিল। তারা হলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোস ও স্বামী বিবেকানন্দ। আপনি জানলে অবাক হবেন ,২০১৩ সালে নরেন্দ্র মোদী নেতাজির পরিবারের সাথে দেখা করেন এবং তখন থেকে উনি লাগাতার নেতাজিকে দেশবাসীর কাছে গর্ভের সহিত তুলে ধরার জন্য প্রচেষ্টা করে যান।গোপন সূত্রে জানা এটাও গেছে জেনারেল জি.ডি বক্সী এই প্রসঙ্গে প্রধামন্ত্রীকে চিঠিও লিখেছেন।এই চিঠিতে দাবি জানানো হয় যে,দিল্লিতে নেতাজির মূর্তি প্রতিস্থাপন করা এবং তার সাথে মূর্তিটি দিল্লির ইন্ডিয়া গেটের সামনে হোক এমনী দাবি জানিয়েছেন।

নেতাজীর পরিবার জেনারেল বক্সীর এই দাবিকে মন থেকে স্বাগত জানিয়েছেন।
কংগ্রেস এই ব্যাপারটিকে রাজনীতি গেম বলে দাবি করেছে। মনে আছে ? এটা সেই কংগ্রেস যারা পার্লামেন্টে নেতাজীর ছবি লাগানোর বিরোধিতা করেছিল। যদিও অটলবিহারী বাজপেয়ীর চেষ্টায় পার্লামেন্টে নেতাজির ছবি লাগানো হয়েছিল। এর সাথে সাথে শিব সেনা ও JDU পার্টি নেতাজির মূর্তি গড়ে তোলার জন্য পুরো সমর্থন জানিয়েছে ।
নেতাজী আমাদের দেশের স্বাধীনতার জন্য নিজের প্রাণ পর্যন্ত দিয়েছেন,তার শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য যাই করা হোক তাই কম হবে। তার মূল বাণী আজও আমাদের মনে গেঁথে আছে,”তোমরা আমাকে রক্ত দাও,আমি তোমাদের স্বাধীনতা দেবো”।

Related Articles

Back to top button