ব্রেকিং নিউজ: শেষমেষ তিহার জেল যেতে হল দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম কে,দেওয়া হল 14 দিনের জেল হেফাজত

শেষমেষ তিহার জেলে যেতে হল দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম কে। 19 শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে দিল্লি আদালতের তরফ থেকে। অর্থাৎ এবার 19  তারিখের পরে করা হবে তার শুনানি।এই দিন সিবিআই তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় নিজেদের হেফাজতে নিতে চাননা আর তারপরেই নির্দেশ দিলেন বিশেষ আদালতের বিচারক।আরো বলে রাখি আজ সকালে সুপ্রিম কোর্টের চিদাম্বরমের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদন খারিজ করে দেন।

যার ফলে আইএনএক্স মিডিয়া কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত চিদাম্বরম কে ইডির গ্রেফতার করার পথ আরও সহজ হয়ে যায়।যদিও সিবিআই বিশেষ আদালত থেকে চিদাম্বরম জামিন পেয়ে যেতেন তাহলে গ্রেফতার করত ইডির তদন্তকারী দল। আর এই দিন আদালত চত্বরে ইডি র তদন্তকারী দল দের ও লক্ষ্য করা যায়। তবে এই শুনানির শুরু থেকেই লক্ষ্য করা যায় চিদাম্বর এর আইনজীবী কপিল সিব্বল জানান তিহার জেলে যেতে চান না তার মক্কেল। তবে প্রয়োজন পড়লে ইডির হেফাজতে যেতে রাজি তার মক্কেল।

আর এদিকে সিবিআই এর তরফ থেকে জানানো হয় চিদাম্বর যেহেতু একজন প্রভাবশালী নেতা সেহেতু তাকে জেল হেফাজতে পাঠানো উচিত তা নাহলে জামিনে থাকলে প্রমাণ লোপাট করার আশঙ্কা থাকতে পারে যা জানান সিবিআইয়ের আইনজীবীরা।আর তার পরই এই সিবিআইয়ের আবেদন মেনেই তাকে 14 দিনের জেল হেফাজতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। তবে তার উকিল কপিল সিব্বল দাবি করেন পাপ্তন অর্থমন্ত্রীর জন্য পৃথক কক্ষ, খাট, বিদেশি টয়লেট ও ওষুধপত্র দিতে হবে।

আর তারপরই শোনা যাচ্ছে তিহার জেলে সাত নম্বর কক্ষটি এই পাপ্তন অর্থমন্ত্রীর জন্য সংরক্ষিত করা হয়েছে। অন্যদিকে আজ সুপ্রিম কোর্টে তদন্তকারীরা দাবি করেন যে চিদাম্বরের  বিরুদ্ধে এই কেলেঙ্কারি অভিযোগ প্রমাণ করার জন্য তাদের যেন পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয় তবে যদি তিনি জামিন মঞ্জুর পেয়ে যান তাহলে তাদের এই খোঁজ বিনে অনেক সমস্যা হতে পারে। যার দরুন সুপ্রিমকোর্টের তরফ থেকে পি চিদাম্বর এর জামিনের আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়।আপনাদের বলে রাখি 2007 সালে আই এন এক্স সংস্থাতে 305 কোটি টাকার বিদেশি লগ্নি পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল পি চিদাম্বরম বিরুদ্ধে আর সেই সময় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মনমোহন আর সেই সময় অর্থমন্ত্রী পদে নিযুক্ত ছিলেন পি চিদাম্বরম।

আরও পড়ুন :