ভোটার কার্ড নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা! ভুলেও এড়িয়ে যাবেন না নইলেই বড় বিপদ…

আগের মাস জুড়ে ছিল বাঙালির বিভিন্ন উৎসব যার মধ্যে ছিল বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গোৎসব, তারপর কালীপুজো, ছট পুজো তারপর আবার বুলবুল দুর্যোগের মোকাবিলা করতে তৎপর ছিল বাংলার মানুষ যার ফলে এমন অনেক মানুষই রয়েছেন যাদের ভোটার কার্ড সংশোধন করা হয়ে ওঠেনি। যার ফলে অনেক সাধারণ মানুষের মধ্যে দুশ্চিন্তা শুরু হয়েছিল এনিয়ে। তবে এবার কিছুটা হলেও স্বস্তির আশ্বাস দেওয়া হল নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে।

নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে ঘোষণা করা হল এবারও ভোটার তালিকা সংশোধনের সময়সীমা কে আরো 11 দিন বাড়িয়ে দেওয়া হল। অর্থাৎ এখন 18 নভেম্বরের পরিবর্তে কমিশনে এলেক্ট্রনস ভেরিফিকেশন প্রোগ্রাম বা ইভিপি চলবে 30 শে নভেম্বর পর্যন্ত।আর এরই মধ্যে যদি ভোটার কার্ডে কোন ভুল থাকে বা কিছু পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয় তাহলে তা সংশোধন করতে পারবেন বলে নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। এই সংশোধনী ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে 2020 সালের 7 ই ফেব্রুয়ারি।

এক্ষেত্রে অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার তালিকা সংশোধন করা সম্ভব সেই জন্য আপনাকে যেতে হবে না কোথাও আপনি ঘরে বসে করে নিতে পারবেন এই কাজ। আর এরজন্য আপনাকে প্লে স্টোর থেকে ভোটার হেল্পলাইন অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিতে হবে।অবশ্যই এই অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করার আগে দেখে নেবেন এই অ্যাপ্লিকেশনটি নির্বাচন কমিশনার দ্বারা প্রস্তুত কিনা তা না হলে আপনি বড় বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন। অন্য কোন সংস্থার দ্বারা পরিচালিত হলে এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনার প্রতারণা সম্ভাবনা বেড়ে যেতে পারে।

আর যদি এই এপ্লিকেশনটি আপনার আগের থেকে ডাউনলোড করা থাকে তাহলে অবশ্যই অ্যাপ্লিকেশন যাচাই করে আপডেট করে নেবেন।অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে ওপেন করার সময় প্রথমেই দেখতে পাবেন ইভিএম (EVM) নামক একটি ট্যাব রয়েছে। এখানে ক্লিক করলে আপনি পরবর্তী পর্যায়ে পৌঁছে যাবেন যেখানে লেখা থাকবে এলেক্টরাল ভেরিফিকেশন প্রোগ্রাম (ELECTORAL VERIFICATION PROGRAM)। তারপর এখানে কয়েকটি অপশন দেওয়া হবে যেগুলিকে আপনাকে এলাও (ALLOW) করতে হবে।

তারপরে আবার একটি অন্য স্ক্রিন খুলে যাবে সেখানে আপনার মোবাইল নম্বর দিতে হবে তবে মাথায় রাখবেন যে মোবাইল নম্বরটি আপনি দিবেন সেটি যাতে সক্রিয় থাকে এবং আপনি ভোটার আইডির সাথে সংযুক্ত করতে চাইছেন সেরকমই মোবাইল নম্বর। এইবার এপিক নম্বর এর সাহায্যে আপনার ভোটের কাঠের সমস্ত তথ্য কে খতিয়ে দেখে নিন। তথ্য মিলে গেলে ইট ইস মি it’s is me অপশনে ক্লিক করতে হবে।এবার মোবাইলে স্কিনে আসা এসব কেন্দ্রে ভোটার কার্ডের সঙ্গে আপনার মোবাইল নম্বরটিকে খুব সহজেই আপডেট করে ফেলা সম্ভব হবে।ভোটার কার্ডের সঙ্গে আপনার মোবাইল নম্বরটি আপডেট হয়ে গেলে ওখানে ক্লিক করলে মোবাইল স্কিনে খুলে যাবে ভোটার কার্ড সহ আপনার যাবতীয় তথ্য।

এরপর এখানে মডিফাই অপশনে ক্লিক করে বদলে ফেলা যাবে নাম, পদবী,ঠিকানাসহ যাবতীয় তথ্য। এইসব যাবতীয় তথ্য দেওয়ার পর এজন্য যে উপযুক্ত নথিপত্র তার ছবি বা পিডিএফ ফাইল অ্যাপের নির্দিষ্ট জায়গায় আপলোড করতে হবে। এর জন্য “Type of Documents”এ ক্লিক করে ডকুমেন্ট আপলোড করতে হবে।এবার আপনার মোবাইলে জিপিএস সেটিং এর মাধ্যমে আপনার বর্তমান ঠিকানা আর অবস্থান কারেন্ট লোকেশন সম্পর্কিত তথ্য কমিশনের দপ্তরে নির্দিষ্ট সিস্টেমে নথিভুক্ত হয়ে যাবে।

Related Articles

Back to top button