ব্রেকিংঃ বিজেপির প্রার্থী তালিকায় আরও 13 জনের নাম ঘোষণা, দুটি কেন্দ্রের প্রার্থীও বদল

বিধানসভা ভোটের প্রথম পর্ব শুরু হচ্ছে ২৭ মার্চ থেকে। ভোট মঞ্চে তৃণমূলকে উৎখাত করার জন্য বারবারই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বদের নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের নানা সভা করাচ্ছে বিরোধী দল বিজেপি। সভা করার জন্য নিয়মিত দিল্লি থেকে উড়ে বাংলায় আসছেন মোদী- আমিত শাহ। কিছুদিন আগেই বিজেপির তরফ থেকে একাধিক এলাকার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হয়েছিল তবে সেই প্রার্থী তালিকায় চৌরঙ্গী থেকে বিজেপির পার্থী হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছিল প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি প্রয়াত সোমেন মিত্রর স্ত্রী শিখা মিত্রকে।

কিন্তু নিজের নাম বিজেপির প্রার্থী তালিকায় দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন সোমেন জায়া। এমনকি এরপর শিক্ষা মিত্র পরিস্কার জানিয়ে দেন, তিনি বিজেপির হয়ে কোনো নির্বাচনে লড়ছেন না। আর তিনি বিজেপিতে যোগও দেননি। শিখাদেবীর এরকম মন্তব্যের পর চরম অস্বস্তিতে পড়ে গেরুয়া শিবির। অন্যদিকে ঠিক এরকমই ঘটনা ঘটে কাশীপুর-বেলগাছিয়া কেন্দ্রের প্রার্থী তরুণ সাহাও সাথেও যেখানে তার নাম বিজেপির প্রার্থী তালিকায় দেখা যায়, আর তারপরেই তরুণ সাহার তরফে জানানো হয় তিনি বিজেপিতে যোগ দেননি বরং তৃণমূলে ছিলেন আর আগামীদিনেও তৃণমূলেই থাকবেন।

তবে এখন বিজেপির তরফ থেকে যে নতুন খবরটি বেরিয়ে আসছে যেখানে জানা যাচ্ছে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের জন্য ঘোষনা করা হয়েছে আরও ১৩ জনের নাম। তার পাশাপাশি এই তালিকাতে চৌরঙ্গী ও কাশীপুর-বেলগাছিয়া কেন্দ্রের প্রার্থীদেরও নাম বদল করা হয়েছে। এবার চৌরঙ্গী কেন্দ্রে থেকে দেবব্রত মাজি এবং কাশীপুর-বেলগাছিয়া কেন্দ্র থেকে শিবাজী সিংহরায়কে প্রার্থী হিসাবে নিযুক্ত করল বিজেপি।

এরই পাশাপাশি গাইঘাটা থেকে মতুয়া মহাসঙ্ঘের সদস্য তথা বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের দাদা সুব্রত ঠাকুরকে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের টিকিট দিল বিজেপি। তাছাড়া আলিপুরদুয়ার থেকে অশোক লাহিড়ীকে সরিয়ে বালুরঘাটের প্রার্থী করল বিজেপি। বিশ্বজিৎ দাসকে বাগদায় প্রার্থী হিসেবে নিযুক্ত করেছে বিজেপি। তাছাড়াও পাহাড়ে GNLF জোটের সঙ্গে প্রার্থী ঘোষণা করেছে বিজেপি।