পানাগড়ে স্থানান্তরিত হচ্ছে ‘ব্রাহ্মাস্ত্র’ কর্পস….

বুধবার দিন পানাগর এর সেনা ছাউনি পরিদর্শন করলেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখ জেনারেল পূর্বাঞ্চল কমান্ডর মুকুন্দ। অরুণাচল প্রদেশের সীমান্তবর্তী এলাকায় চীনের মোকাবেলায় তৈরি “ব্রহ্মাস্ত্র” কর্পসকে স্থানান্তর করা হবে বলে জানতে পারা গেছে। এছাড়াও সেদিন ছিলেন জেনারেল কমান্ডিং অফিসার পি এন রাও আপনাদের বলে রাখি এই জেনারেল কমান্ডিং অফিসার পি এন রাও হলেন ব্রহ্মাস্ত্র কর্পসের জেনারেল। আপনাদের বলে রাখি ভারতীয় সেনার প্রথম পর্ব তাই করবো যা অতি দ্রুত প্রক্রিয়া বাহিনী হিসাবে চীন সীমান্তবর্তী আক্রমণাত্মক শক্তি হিসাবে নির্বাচিত হয়েছে।আপনাদের বলে রাখি গত কয়েক বছর ধরে পানাগর বায়ু সেনা ঘাঁটি ও পদাতিক সেনা ঘাঁটি উপর বিশেষ গুরুত্ব বাড়ানো হয়েছে এবং সেই মতো সেখানে সেনা ছাউনির টহর ও বাড়ানো হয়েছে।

 

 

 

নিরাপত্তার জন্য সিভিক বিভাগকে সরানোর কাজ শুরু হয়েছে, এমনকি সেখানে শুরু হয়েছে সীমানা ঘিরার কাজও ঠিক সেরকম সেখানে সেনা সংখ্যাও কয়েক গুণ বাড়ানো হয়েছে।যেমন কি আপনারা সকলেই জানেন সীমান্তে লাগাতার ভারত-পাক সংঘর্ষে উত্তেজনা এখন পারদ তুঙ্গে পৌঁছেছে। যে কোন সময় কোন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়ে দাঁড়াতে হতে পারে। তাই মোকাবিলা করার জন্য তৈরি থাকতে হবে প্রতিটি মুহূর্ত। ইতিমধ্যেই দেশের প্রতিটি সেনা বাহিনীর ঘাঁটি ও বায়ু সেনা ঘাঁটি কে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি আপনাদের বলে রাখি পানাগর বায়ুসেনা ঘাঁটিতে সুপার হারকিউলিস বিমান কে তৈরি রাখা হয়েছে যে কোন মুহূর্তে শত্রুদের মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীরা। খুব কম শব্দই বিমান কম সময়ে যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে পৌঁছাবে এই বিমান। শুধুমাত্র পারমিশন এর অপেক্ষায়।

আর ঠিক এমন অবস্থায় বুধবার দিন পানা ঘরে পৌঁছে ঘাটের এগিয়ে ব্রহ্মাস্ত্র কে তৈরি থাকার জন্য নির্দেশ দিয়ে এসেছেন ভারতীয় সেনার ইস্টার্ন কমান্ডার মনোজ মুকুন্দ। এবার ব্রহ্মাস্ত্র কর্পসকে ইউনিটিও রাঁচি থেকে পানাগড়ে আনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সেনা কর্তৃপক্ষ।

Krishna

Krishna, a B.tech students writes on Technical and Business related Articals. Contact : krishnagarain.india@gmail.com

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close