নিজের বিয়ের আসরে পা রাখতে চাইলো না “ধন্যি কনে” , কারণ জেনে চমকে যাবেন আপনিও, ভাইরাল ভিডিও

সাম্প্রতিককালে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে বিয়ের আসরে বেঁকে বসেছেন কনে। বাঙালি তথা ভারতীয় মেয়েদের বিয়ে নিয়ে বহু প্রতীক্ষিত একটি স্বপ্ন থাকে সব মেয়েই চাই জাঁকজমক ও নিখুঁত ভাবে যেন তাদের বিয়ে সুসম্পন্ন হয়। এদিন পাওয়া খবরে দেখা যায় জাঁকজমক ভাবে সেজে উঠেছে বিয়ের আসর। বিয়ের আসরে হাজির সুসজ্জিত বর।গোলাপি লেহেঙ্গায় অপরূপ সুন্দর লাগছে পাত্রীকে । বিয়ের সমস্ত আয়োজন করা হয়ে গেছে এবং নিমন্ত্রিত রাও চলে এসেছেন। অপেক্ষা শুধু এখন সাত পাকে বাঁধার।

কিন্তু হঠাৎই কোথাও যেন তাল কেটে যায়। নিজের বিয়ের আসরেই পা রাখতে নারাজ পাত্রী। বেঁকে বসেন বিয়ে করবেন না বলে । কিন্তু কি এমন হয়েছে যে শেষ মুহূর্তে পাত্রী বিয়ে করবেন না। পাত্র কি তার অপছন্দের ?জোর করে বিয়ে দেওয়া হচ্ছে ?নাকি কেউ তাকে কোন অপমানসূচক কথা বলেছেন এমন কি সমস্যা হল যাতে শেষ মুহূর্তে এসে এরকম গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয় কনে!!?শুনে হতবাক আসরে উপস্থিত সকলেই!!

যার বিয়ে নিয়ে এতক্ষণ কথা হচ্ছে সেই কনে অর্থাৎ পাত্রী শিবানী হঠাৎই একদিন বিয়ের আসরে বিয়ে করবেন না বলে বেঁকে বসেন। বরাবরই তিনি তাঁর নিজের বিয়ে নিয়ে এক্সাইটেড ছিলেন । নিজের বিয়ের যাবতীয় সাজসজ্জার ব্যাপারে বাড়ির লোকের সাথে আলোচনা করেছিলেন শিবানী। নিজের বিয়ের প্রত্যেকটা মুহূর্ত যেন পারফেক্ট হয় সেই দিকে তাঁর কড়া নজর ছিল। বিয়ের আসরের প্রত্যেকটি রিচুয়াল যাতে নিখুঁত হয় সেদিকে বরাবরই খুঁতখুঁতে ছিলেন শিবানী। আর এইখানে পান তিনি বড়সড় ধাক্কা।

ব্যাপারটি হল শিবানী কথামতো পরিকল্পনা ছিল তিনি যখন বিয়ের আসরে প রাখবেন মিউজিক সিস্টেমে একটি বিশেষ গান বেজে উঠবে। কিন্তু তিনি যখন বিয়ের আসরে পা রাখেন তখন মিউজিক সিস্টেমে সেই গানটি বাজানৈ হয়নি। আর এতেই কেটে যায় তাল । গোঁসা হয়ে যায় নতুন কনের এই পুরো বিষয়টিই ভাইরাল হয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় । নেটিজেনদের আলোচনার বিষয় এই ভাইরাল হওয়া বিয়ের ভিডিওটি।

সেখানে দেখা যাচ্ছে এক সামান্য কারণের জন্য কনে বিয়ে করতে নারাজ অনেকেই এটাকে মজার ছলে দেখছেন , অনেকে ব্যঙ্গ করছেন ,আবার অনেকে এটাকে একটি আবেগপ্রবণ মুহূর্ত বলে মনে করছেন । কিছু কিছু মানুষের মন্তব্য করতে দেখা যায় “ধন্যি কনে” বলে। কারো কারো বিশ্বাস হয় না যে সামান্য কারণে কেউ বিয়ে করতে নারাজ হতে পারে!?। তবে আর যাই হোক শেষমেশ বিয়ের আসরে সব কাজ সু-সম্পন্ন হয় । এবং খুশি খুশি চার হাত এক হয় । ফুটে ওঠে নবদম্পতির মুখে হাসি।