বাংলায় বিজেপির আসন ‘দু’অঙ্ক ছাড়ালে কাজ ছেড়ে দেব’, বাংলার ভোট নিয়ে মুখ খুলেই বিস্ফোরক পিকে

2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের ডঙ্কা ইতিমধ্যে বাংলাতে বাংলাতে বাজতে শুরু হয়ে গিয়েছে,নির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসছে ততো দেখতে পাওয়া যাচ্ছে এক দলের সদস্য ওই দল ছেড়ে অন্য দলে যোগদান করছে।আর মুকুল রায় যবে থেকে তৃণমূল দল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করেছে সেদিন থেকেই তৃণমূলের দলে মধ্যে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে।

 

তবে যেমনটা আমরা জানি গত দু’দিনের জন্য বাংলার সফরে এসেছিলেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আর সেখান থেকেই তিনি রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন বাংলা জয় করার। তবে এবার অমিত শাহ কে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন তৃণমূলে ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোর। পিকের দাবি বাংলার নির্বাচনের দু’অঙ্ক পেরতে বিজেপিকে যথেষ্ট কষ্ট করতে হবে।

 

এরপরই বিশেষ দ্রষ্টব্য দিয়ে তিনি তার টুইটে লিখেন, যদি এর চেয়ে ভাল ফল হয় বিজেপির বাংলাতে তাহলে তিনি কাজ ছেড়ে দেবেন। যদিও অন্যদিকে তৃণমূলের এই ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরকে উরফে পিকে নিয়ে দলের অন্দরেই একাধিক অসন্তোষ বাড়ছে। তাঁর সঙ্গে কর্পোরেট ধাঁচে রাজনীতির কাজ করতে নারাজ অভিজ্ঞরা। আর এই নিয়ে নানাজন ইতিমধ্যে আপত্তি জানিয়েছেন।

 

তাছাড়া, তথাকথিত ‘বিক্ষুব্ধ’ নেতা, মন্ত্রীরা দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনায় পিকে’র উপস্থিতি মানতে চান না। রাজনৈতিক মহলের একাংশের ধারণা রয়েছে, শুভেন্দু অধিকারীর দলত্যাগের নেপথ্য নায়ক নাকি এই পিকেই। একদিকে যখন পিকে’কে নিয়ে দলের অন্দরেই ক্রমশ ক্ষোভ বাড়ছে, সেই সময়ে গেরুয়া শিবিরও একুশে বাংলার ক্ষমতা দখলের কাজে কোনো খামতি রাখতে চাইছে না। একাধিক দিন বিজেপিতে যোগ দানের হিড়িক বাড়ছে তৃণমূল-সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতাদের।

প্রায় প্রতি মাসেই দিল্লি থেকে নেতা, মন্ত্রীরা এসে বাংলা দখলের হুঁশিয়ারি দিচ্ছে। অন্যদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাতে এসে যে শোভা করেছেন তার দরুন বিজেপি কর্মীদের মনে আত্মবিশ্বাস আরও বেড়েছে। তাছাড়া এই সভা থেকেই অমিত শাহ আশ্বাস দিয়েছেন, বঙ্গ বিজেপির সদস্য বাংলার কোনও ভূমিপুত্রই হবেন পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী।