বেকিং- এবার করোনা আক্রান্ত বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়

করোনা ভাইরাস মন্ত্রী, বিধায়কদেরও ছাড়েনি। সম্প্রতি মন্ত্রী হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু প্রথমে করোনা আক্রান্ত হন।যদিও পরে তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন। মন্ত্রী ছাড়াও পশ্চিমবঙ্গের আরো এক বিধায়ক করোনাতে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এ বিধায়কের নাম তমোনাশ ঘোষ। এমন কী এনাকে করানোর জন্য প্রাণ হারাতে হয়েছে। তবে এবার করোনাতে আক্রান্ত হলেন বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। শুক্রবার ধরা পড়ে হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় করোনাতে আক্রান্ত।

খবর পাওয়া গেছে কয়েকদিন ধরেই তিনি জ্বর,সর্দি, কাশিতে ভুগছিলেন। শুক্রবার টুইট করে লকেট চট্টোপাধ্যায় নিজে জানিয়েছেন যে তিনি করোনাতে আক্রান্ত। এদিন তিনি টুইট করে লিখেন, “গত এক সপ্তাহ ধরে আমার হালকা জ্বর ছিল। তাই আমি সেলফ আইসোলেশনে ছিলাম। আজ সকালে আমার করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আশা করি আপনারা সবাই সুস্থ রয়েছেন। সুস্থ থাকবেন ভালো থাকবেন বাকি কথা পরে জানাবো।” এ রাজ্যের বিজেপি সাংসদদের মধ্যে প্রথম তিনি করোনাতে আক্রান্ত হলেন। এবং তিনি করোনাতে আক্রান্ত জনার সাথে সাথেই সঙ্গে সঙ্গে টুইট করে সকলকে জানিয়ে দেন।

প্রসঙ্গত বেশ কয়েকদিন ধরেই অসুস্থ রয়েছেন রাজ্য বিজেপির বেশ কয়েকজন নেতা। কারোর জ্বর বা কারোর সর্দি, কাশি হয়েছে। তাই অনেকেই এখন নিজেদেরকে সেলফ আইসোলেশনে রেখেছেন। লকেট চট্টোপাধ্যায় নিজেও বেশ কয়েকদিন ধরে সমস্ত দলীয় কর্মসূচি থেকে নিজেকে সরিয়ে সেলফ আইসোলেশনে ছিলেন। এর পাশাপাশি আপনাদের জানিয়ে দিই যে, মুরলীধর সেন লেনে বিজেপির যে রাজ্যের অফিস রয়েছে সেই অফিসের কাছে একটি বাড়িতে করোনা আক্রান্তের হদিস পাওয়া যায়।

তাই আতঙ্কে সেই অফিসে এখন অনেক দলীয় কর্মী যেতে নারাজ। সম্প্রতি করোনার থেকে বাঁচতে হলে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বজায় রাখতে হবে বলে ডাক্তাররা পরামর্শ দিচ্ছেন। কিন্তু নেতা-মন্ত্রীদের ক্ষেত্রে বিশেষ করে দলীয় কোন অনুষ্ঠানে বা দলীয় কর্মসূচিতে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা একটা খুবই কঠিন ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। তাই সেই দিক থেকে লক্ষ্য রেখে এখন কিছুদিনের জন্য কোন আন্দোলন কর্মসূচি করা হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button