বিজেপিতে এসে পুরনো ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করছি মোদিকে বক্তব্য মুকুলের।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুকুল রায়ের বৈঠকে, মুকুল রায় মোদিকে বাংলার বর্তমান অবস্থার কথা স্পষ্টভাবে তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রীকে দুদিন ধরে বাংলার বর্তমান অবস্থার কথা খুঁটিনাটি বলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। রাজধানী দিল্লিতে গত দুদিন ধরে বিজেপির রাষ্ট্রীয় অধিবেশন চলছে। শনিবার এই অধিবেশনের শেষ দিন ছিল। আর এই অধিবেশনে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিনহা কে পিছনে ফেলে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সামনে বাংলার গণতন্ত্রের পুরো ছবি তুলে ধরার জন্য ডাক পেল বিজেপি নেতা মুকুল রায়। আর এরকম সুযোগ একেবারে হাতছাড়া করেননি মুকুল রায়।


ভাষণ দিতে এসে প্রথমেই বাংলার গণতন্ত্র নিয়ে বললেন মুকুল রায়। তিনি বললেন,ভারতের পরম্পরা হল গণতন্ত্র। আর সেই গণতন্ত্র বাংলাতে নেই। তিনি এটাও বলেন যে বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় আসবে এবং গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা করবে। এরপর মুকুল রায় পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রসঙ্গ তুলে বলেন, গুজরাতে ভোট হয়,মধ্যপ্রদেশে ভোট হয় আরো বিভিন্ন জায়গাতে ভোট হয়। কিন্তু বাংলাতে যে খুনের রাজনীতি করা হয় তা অন্য কোথাও হয় না। এখানেই থামেননি মুকুল রায় তিনি আরো বলেন যে, বাংলায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রায় 100 কর্মী খুন হয়েছেন। 100 জনের মধ্যে 48 জন ছিল বিজেপি কর্মী। এই খবরে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে বাংলায় গণতন্ত্র কতটা ভয়াবহ পরিচিতি রয়েছে বলে দাবি করেন মুকুল রায়।

শুধু এখানেই বক্তব্য শেষ করেননি মুকুল রায় তিনি বলেন, সমাবেশে বিভিন্ন রাজ্য থেকে আসা নেতা-কর্মী এবং মঞ্চে উপস্থিত মোদির সামনে কিভাবে কেন্দ্রের প্রকল্পের নাম বদলে দেওয়া হচ্ছে এই বিষয় নিয়েও তিনি বক্তব্য রাখেন। তিনি এও বলেন যে স্বচ্ছ ভারত এর নাম বদলে দেওয়া হচ্ছে। শুধু এই প্রকল্প নয় আয়ুষ্মান ভারত নিয়ে সরব হন বিজেপির এই হেভিওয়েট নেতা। এই প্রকল্প নিয়ে তিনি বলেন, মোদির স্বপ্নের এই প্রকল্পটি নিয়ে জুলুমবাজি করছে তৃণমূলের কিছু নেতারা।

তিনি আরও বলেন যে, বিজেপিতে তাঁর আসা প্রায়শ্চিত্য করার সমান। এই প্রসঙ্গ তুলে তিনি মোদির সামনে বললেন, তৃণমূল দলটা তৈরি করার পিছনে আমি ছিলাম তা ঠিকই, কিন্তু এখন সেটা অতীত হয়ে গিয়েছে। তিনি এও বলেন যে, বিজেপি তে এসে তিনি তার জন্য প্রায়শ্চিত্ত করছেন। এই বিষয়ে আপনাদের কি মন্তব্য তা আমাদের অবশ্যই জানাবেন। আরো নতুন নতুন খবরের আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েব পোর্টালটিতে।