সারদা প্রসঙ্গে এবার মুকুল রায় থেকে দূরত্ব বাড়ছে বিজেপির! দিলীপ ঘোষ এ মন্তব্যকে ঘিরে ফের জল্পনা শুরু..

সারদা তদন্ত কে ঘিরে মুকুল রায় ষড়যন্ত্রের বিষয়টি নিয়ে কোন কিছু মন্তব্য করতে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব। বরং তারা এই বিষয়টি নিয়ে কার্যত দূরত্ব বজায় রেখেছে। এ প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব দিলীপ ঘোষ বলেছেন, তদন্ত সম্পূর্ণ শেষ হয়ে যাওয়ার পর কে ভুল, কে ঠিক তা বোঝা যাবে। আদালত যাকে দোষী সাব্যস্ত করবে তিনিই দোষী হবেন। এরপর তিনি এও বলেছেন সিবিআই যাদেরকে ডাকছেন তাদের মধ্যে অনেকেই মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করাটাকে এড়িয়ে যাচ্ছেন।

রবিবার সিবিআই আধিকারিকরা সাসপেন্ড হয়ে যাওয়া আইপিএস এএমএইচ মির্জাকে সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন এনগিন রোডে মুকুল রায়ের ফ্ল্যাটে। পরে এ নিয়ে মুকুল রায় বলেন যে, বড় রকমের ষড়যন্ত্র হয়েছে, এর পিছনে রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যারাই গ্রেপ্তার হচ্ছেন তাদের মুখ দিয়ে মুকুল রায়ের নাম বলানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। দিলীপ ঘোষ বলেন, তদন্ত চলছে। মুকুলদা ওখানে গিয়েছেন। তিনি তদন্তে সহযোগিতা করছেন। এরপর দিলীপ ঘোষ বলেন, তদন্ত সম্পন্ন হলেই বোঝা যাবে কে ঠিক কে ভুল।

বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা তথা রাহুল সিনহা এ সম্পর্কে বলেছেন, মুকুল রায়ের দাবিতে বাস্তবভিত্তিক থাকলেও থাকতে পারে। তবে তিনি মুকুল রায়ের ষড়যন্ত্র তত্ত্বে সঙ্গে একমত হতে পারেননি বলে জানিয়েছেন। এর পাশাপাশি তিনি এও বলেছেন মুকুল রায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন। তাই মুকুল রায় দোষী হলে বিজেপির বদনাম হবে। অপরদিকে আবার রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, মুকুল রায় সারদা কাণ্ডে গ্রেফতার হলে লাভ বিজেপির হবে কারণ তখন বিরোধী দলের কেউ বলতে পারবেনা যে সিবিআই নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করেনি। অবশ্য সারদা কাণ্ডের তদন্ত নিয়ে দিলীপ ঘোষের এমন মন্তব্যকে ঘিরে জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে। রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুরের বাখরাবাদ ভারতীয় বিদ্যাপীঠে হীরক জয়ন্তী অনুষ্ঠানে এসে বলেন, সিবিআই যাদের ডাকছে তাদের মধ্যে অনেকেই মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ এড়িয়ে যাচ্ছেন।

Related Articles

Back to top button