বাংলায় এনআরসি নিয়ে রাজ্যের শাসক দলকে কড়া ভাষায় জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহ…

কলকাতা নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে নাগরিকপঞ্জি ইস্যুতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস কে কড়া বার্তা দিয়ে গেলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। তিনি বলেন, ” আপনারা প্রথমে বামেদের ক্ষমতায় এনে দেখেছেন। তারপর তৃণমূল কংগ্রেসকে ক্ষমতায় এনেছেন। এখন আপনারা নিজেরাই বুঝতে পারছেন বাংলার কি অবস্থা করেছে তারা। তাই আমি আপনাদের বলছি, একবারের জন্যেও আপনারা বিজেপিকে ক্ষমতায় এনে দেখুন।

আমি কথা দিলাম এই বাংলাকে সোনার বাংলা গড়ে তুলবো। বর্তমানে এনআরসি নিয়ে রাজনৈতিক উত্তেজনা চরমে। এই এনআরসি নিয়ে অমিত শাহ বলেন,” এনআরসি নিয়ে বিজেপির যে নীতি রয়েছে তা স্পষ্ট করতে আমি এখানে এসেছি। আমি এখানে দাঁড়িয়ে স্পষ্ট বলে দিচ্ছি, হিন্দু ধর্মাবলম্বী সমস্ত শরণার্থীরা ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবেন। এনআরসি থেকে তাদের নাম কখনোই বাদ যাবেনা। এর জন্য আলাদা করে নাগরিকত্ব বিল আনবে মোদি সরকার।

এরপর তিনি তৃণমূল কংগ্রেসকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করে বলেন, অনুপ্রবেশকারীদের’ নিয়ে ভোটব্যাঙ্ক বাড়াচ্ছে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই অনুপ্রবেশকারীদের তাড়িয়ে শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন বিরোধী দলনেত্রী ছিলেন তখন অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে বড় বড় কথা বলছিলেন। আর এখন তিনি সেই অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে ভোটব্যাঙ্ক বাড়াচ্ছেন। এখন তিনি পুরোপুরি উল্টো কথা বলছেন। আপনাদের আমি বলছি, বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে শরণার্থীদের সঙ্গে কথা বলুন এবং ওদের আশ্বাস দিন যে, তাদের কোন ক্ষতি হবে না।

সমস্ত হিন্দু শরনার্থীদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।” এরপর পুজোর অনুমতি প্রসঙ্গ তুলে অমিত শাহ বলেন, ” আজকে বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজ চলছে। এখন পরিস্থিতি এত খারাপ হয়েছে যে, দূর্গাপুজার বিসর্জনের সময় বিসর্জন এর অনুমতি নেওয়ার জন্য আদালতে যেতে হচ্ছে বাংলাকে। শুধু দুর্গাপূজা বলে নয় সরস্বতী পূজা করতে গেলেও নানান বাধা সৃষ্টি হয়। কিন্তু আমি এখানে দাড়িয়ে বলছি, যদি কেউ পুজো বন্ধ করার চেষ্টা করে তাহলে আমরা কাউকে ছেড়ে কথা বলবো না।”